ছ’টি বাসের ছাদে ওঠার সিঁড়ি কাটা হল বর্ধমানে

0
395

সংবাদদাতা, বর্ধমানঃ- দুর্ঘটনা ঠেকাতে বাসের ছাদে যাত্রী তোলার বিরুদ্ধে ফের অভিযানে নামল বর্ধমান পুলিশ। বৃহস্পতিবার থেকে যাত্রী সুরক্ষা নিশ্চিৎ করতে শুরু করা হয়েছে এই টানা অভিযান, বলে পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ সূত্রে জানা যায়।


বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের পশ্চিমপ্রান্তে নবাবহাট বাস স্ট্যান্ডে আচমকাই হানা দেয় বর্ধমান পুলিশ ও আঞ্চলিক পরিবহন দপ্তরের একটি যৌথ বাহিনী। গ্যাস কাটার দিয়ে একের পর এক বাসের ছাদে ওঠার সিঁড়ি কেটে ফেলা হয়। সেই সব যাত্রীবাহী বাসকেই টার্গেট করা হয়, যে গুলিতে ছাদে যাত্রীরা বসেছিলেন। এদিন ৬ টি বাসের ছাদে ওঠার সিঁড়ি কেটে ফেলা হয়। জেলা আঞ্চলিক পরিবহন আধিকারিক, রানা বিশ্বাস বলেন, “বার বার সতর্ক করা সত্বেও বাস চালক থেকে যাত্রী-কেউই সচেতন হচ্ছেন না বলে আমরা এই ব্যবস্থা নিলাম। অভিযান চলবে”। তিনি বলেন, “২০১৫ সালের এপ্রিল মাসে বর্ধমানের মির্জাপুরে একটি দূরপাল্লার বাস দুর্ঘটনায় পড়ে। মারা যান ১৩ জন যাত্রী, আহত হন ৪৩ জন। তারা বেশির ভাগই ছাদে বসা যাত্রী ছিলেন। তারপর থেকেই আমরা সমস্ত যাত্রীবাহী বাস সংস্থাকে এ বিষয়ে সতর্ক করেছিলাম”।
বাসের ছাদে যাত্রী ওঠা পুরোপুরি বন্ধ করতে, জেলা প্রশাসনও এবার কড়া মনোভাব নিচ্ছে। পূর্ব বর্ধমানের অতিরিক্ত জেলা শাসক রজত রায় বলেন, “চলতি সপ্তাহে একটি বৈঠকে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি জেলার বড় বড় বাস টার্মিনাস গুলিতে একটি করে ইলেকট্রিক গ্যাস কাটার রাখা হবে। বাসের ছাদে সিঁড়ি লাগানো থাকলেই তা কেটে ফেলা হবে”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here