অন্ডালে লক্ষ্মী পুজোর ব্যস্ততা

0
567

সোমনাথ মুখার্জী, অন্ডালঃ- দুর্গাপুজো শেষ। মায়ের বিদায়ের রেশ কাটিয়ে ঘরে ঘরে লক্ষ্মী পুজোর ব্যস্ততা চলছে পুরোদমে। মা লক্ষ্মীর কৃপা দৃষ্টি পেতে গৃহিনীরা ব্যস্ত আরাধনার সামগ্রী প্রস্তুত ও আলপনা দেওয়ায়। তবে বাঙালীর বাড়িতে বাড়িতে কোজাগরী লক্ষ্মী পুজো চোখে পড়লেও পশ্চিম বর্ধমান জেলার অন্ডালের খাঁদরা গ্রামের লক্ষ্মী পুজো প্রত্যেক বছর আলাদা নজর কাড়ে। কারণ হিসেবে শোনা যায়, আজ থেকে প্রায় ১৫৯ বছর আগে এই পুজো শুরু করেছিলেন সুধাকৃষ্ণ সিংহ নামে এক ব্যক্তি। তাঁর আদি বাড়ি মুর্শিদাবাদ জেলার কাঁদিতে হলেও পরে খাঁদরা গ্রামে এসে তিনিই এই পুজোর প্রচলন করেন। জানা যায়, তখন সেই গ্রামে ১১টি দুর্গাপুজো হলেও কোনও জায়গায় লক্ষ্মী পুজো হত না। আর এখন এই গোটা খাঁদরা গ্রামে একটিই লক্ষ্মী পুজো হয়ে আসছে। এলাকাবাসীদের কাছ থেকে শোনা যায়, এখানে লক্ষী প্রতিমার দুই দিকে দুটি পরী থাকে। শুধু সিংহ পরিবার নয়, আড়াই দিন ব্যাপী এই পুজো উপলক্ষ্যে গ্রামের প্রত্যেকটি মানুষ প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণ করেন। লক্ষ্মী পুজোকে কেন্দ্র করে নানান সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের সংবর্ধনার আয়োজনও করা হয়।, অন্ডালঃ দুর্গাপুজো শেষ। মায়ের বিদায়ের রেশ কাটিয়ে ঘরে ঘরে লক্ষ্মী পুজোর ব্যস্ততা চলছে পুরোদমে। মা লক্ষ্মীর কৃপা দৃষ্টি পেতে গৃহিনীরা ব্যস্ত আরাধনার সামগ্রী প্রস্তুত ও আলপনা দেওয়ায়। তবে বাঙালীর বাড়িতে বাড়িতে কোজাগরী লক্ষ্মী পুজো চোখে পড়লেও পশ্চিম বর্ধমান জেলার অন্ডালের খাঁদরা গ্রামের লক্ষ্মী পুজো প্রত্যেক বছর আলাদা নজর কাড়ে। কারণ হিসেবে শোনা যায়, আজ থেকে প্রায় ১৫৯ বছর আগে এই পুজো শুরু করেছিলেন সুধাকৃষ্ণ সিংহ নামে এক ব্যক্তি। তাঁর আদি বাড়ি মুর্শিদাবাদ জেলার কাঁদিতে হলেও পরে খাঁদরা গ্রামে এসে তিনিই এই পুজোর প্রচলন করেন। জানা যায়, তখন সেই গ্রামে ১১টি দুর্গাপুজো হলেও কোনও জায়গায় লক্ষ্মী পুজো হত না। আর এখন এই গোটা খাঁদরা গ্রামে একটিই লক্ষ্মী পুজো হয়ে আসছে। এলাকাবাসীদের কাছ থেকে শোনা যায়, এখানে লক্ষী প্রতিমার দুই দিকে দুটি পরী থাকে। শুধু সিংহ পরিবার নয়, আড়াই দিন ব্যাপী এই পুজো উপলক্ষ্যে গ্রামের প্রত্যেকটি মানুষ প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণ করেন। লক্ষ্মী পুজোকে কেন্দ্র করে নানান সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের সংবর্ধনার আয়োজনও করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here