বিভীষণ বধ’ই দুর্গাপুর (পশ্চিম)এ প্রতিজ্ঞা এবার বাম-কংগ্রেসের

0
1145

মনোজ সিংহ, দুর্গাপুরঃ- এবারের ভোটে, দুর্গাপুর (পশ্চিম) বিধানসভা আসনে ‘বিভীষণ বধ’ই বড় প্রতিজ্ঞা বাম-কংগ্রেস জোটের। জাতীয় রাজনীতিতে সিপিএম, কংগ্রেসের প্রধান ‘শত্রু’ বিজেপি হলেও, বঙ্গের ভোটরঙ্গে জোট জানিয়ে দিয়েছে- এরাজ্যে এখন তাদের মূল লক্ষ্যই হল- যে কোনও উপায়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে গদিচ্যূত করা।

রাজ্যে বামেদের নীতির চেয়েও দুর্গাপুর (পশ্চিম)এ আরো ‘কঠিন’প্রতিজ্ঞা সিপিএম-কংগ্রেস জোটের। কারণ, এখানে এবার তাদের গুরুদায়িত্ব ‘বিভীষণ বধ’পালাকে ঠিকঠাক মঞ্চস্থ করার। বামেদের দাবি, সেই বিভীষণ আর কেউ নন- বিশ্বনাথ পাড়িয়াল। যিনি, ২০১৬-র নির্বাচনে কংগ্রেস প্রার্থী হয়ে বামেদের পুরো সমর্থন কাজে লাগিয়ে বিধায়কের সিংহাসনে বসেছিলেন আর কয়েকমাস পরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘কোলে’ গিয়ে ফের বসে পড়েন। নিজের মুখে তার এই কাজকে ‘উন্নয়নের স্বার্থে’ বলে বিশ্বনাথ দাবি করলেও, বাম-কংগ্রেস তাকে বিশ্বাসঘাতকই ঠাহর করে। সেই বিশ্বনাথই ফের তৃণমূল প্রার্থী, দুর্গাপুর (পশ্চিম) আসনে। তাই, সিপিএমের পশ্চিম বর্ধমান জেলা কমিটির সদস্য পঙ্কজ রায় সরকার সাফ জানিয়ে দিলেন, “এবারের ভোট আমাদের কাছে একজন বিশ্বাসঘাতকের বিরুদ্ধে ‘বদলা’ নেওয়ার ভোট। এ সুযোগ আমরা কিছুতেই হাতছাড়া করবো না।” দলবদলু বিশ্বনাথ যে ফের পাল্টি খাবেন না- এমনও কোনো নিশ্চিয়তা নেই বলে বাম-কংগ্রেস সহ বহু তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীও মনে করেন। পঙ্কজ বললেন, “ওনার বিশ্বাসঘাতকতায় বাম বা কংগ্রেসের ভাবমূর্তিতে কোনো চিড় ধরেনি। কারণ, ওকে বিশ্বাস করে হাজার হাজার মানুষ ভোট দিয়েছিল। উনি তাদের ঠকিয়েছিলেন। আমরা আমাদের দায়িত্ব পালন করেছিলাম। উনি ধোঁকা দিয়েছিলেন। আমরা এবারো দায়িত্ব সামলাবো-তবে,বেশি করে সামলাবো ওই বিশ্বাসঘাতককে শিক্ষা দিতে।”


দুর্গাপুর(পশ্চিম) কেন্দ্র জোটধর্ম মেনে ফের কংগ্রেস প্রার্থীর জন্য ছাড়া হল। সেক্ষেত্রে, এবার কি সিপিএম বাড়তি কোনো শর্ত আরোপ করছে কংগ্রেসের ওপর? পঙ্কজ বললেন, “আমাদের বা কংগ্রেসের দোষে তো আর অমনটা ঘটেনি। আমাদের কারো বিশ্বাসযোগ্যতা কমেনি। তাই পারস্পরিক বোঝাপড়ায় কোনো আলাদা শর্ত নয়। শর্ত একটাই- বিশ্বাসঘাতক বিশ্বনাথকে শিক্ষা দাও।”


এদিকে, বুধবার সকাল পর্যন্ত দুর্গাপুর(পশ্চিম)এর কংগ্রেস প্রার্থীর নাম ঘোষণা হয়নি। বিশ্বস্ত সূত্রের খবর, প্রার্থী খুঁজতে মরীয়া কংগ্রেস ফের নতুন করে আরো কিছু বায়োডাটা চেয়েছে ইচ্ছুকদের কাছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here