দুর্গাপুর থেকে ট্রেলার লুঠ, চালক খুন : যাবজ্জীবন সাজা বিহারের দুই খুনির

0
699

সংবাদদাতা, বর্ধমান:- বেসরকারি লোহা কারখানার গেট থেকে লোহা বোঝাই ট্রেলার হাইজ্যাক করে, চালককে খুনের দায়ে বিহারের দুই যুবককে যাবজ্জীবন সাজা শোনাল আদালত।

২০১৭ সালের ১৬ অক্টোবর দুর্গাপুরের কোকওভেন থানা এলাকার একটি স্পঞ্জ আযরন কারখানার গেট থেকেই কলকাতা পৌঁছে দেওয়ার আব্দার করে ট্রেলারটিতে চাপে তিন জন। নিজেদের লরির চালক বলে পরিচয় দেয় তারা। ট্রেলারের চালক পিন্টূ যাদব ও তার ভাই খালাসি বিশ্বকর্মা যাদব ওই তিন জনকে সাথে নিতে রাজি হয়ে যায়। পিন্টূ ও বিশ্বকর্মার বাড়ি বিহারের জিবিনগর থানার ভারতপুরায়। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কলকাতার পথে বর্ধমান পার হয়ে মশাগ্রামের রেল ফ্ল্যাইওভারের পাশে একটি হোটেলে ওই তিন যুবক ট্রেলার থামিয়ে খাবার খাওয়ার কথা বলে। বিশ্বকর্মাকে তারা ছল করে জল আনতে পাঠায়। হোটেলের কাছে পৌঁছতেই বিশ্বকর্মা ট্রেলারের ইঞ্জিনের আওয়াজ পেয়ে ছুটে যায়, দেখে পিন্টূ নেই। কেবিনে বসে ওই তিনজন। তারা বিশ্বকর্মাকে ছুরি নিয়ে মারতে এলে লাফ দিয়ে কোনোক্রমে বাঁচে সে। অভিযোগ দায়ের হয় শক্তিগড় থানায়। পরদিন জাতীয় সড়কের পাশের নালা থেকে পিন্টূর দেহ উদ্ধার হয়। আর লুঠ হওয়া ট্রেলার পাওয়া যায় তারকেশ্বর রোডের আঝাপুরে।

ঘটনার তদন্তে নেমে খুন হওয়া পিন্টূর মোবাইল ফোনের সূত্র ধরেই বিহারের বাক্সা জেলার নওয়ানগর থেকে রাজকিশোর রাই ও উপেন্দর রাইকে গ্রেফতার করে পুলিশ। শুক্রবার বর্ধমানের ফাস্ট ট্র্যাক কোর্ট রাজকিশোর ও উপেন্দরকে খুনের দায়ে যাবজ্জীবন সাজা শুনিয়েছে। সরকারি আইনজীবী শিবিরাম ঘোষাল বলেন “সাজার পাশাপাশি দোষীদের ১০ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়েছে।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here