মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে অর্থ সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসছেন ক্লাব ও বিভিন্ন সংস্থারাও

0
494

নিজস্ব সংবাদদাতা, দুর্গাপুর ও বর্ধমানঃ- করোনার ক্ষতিগ্রস্থ মানুষদের সাহায্যের জন্যে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দরাজ হাতে অর্থ দেওয়া শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যেই সাংসদ, বিধায়করা তাঁদের ভাতা এবং সাংসদ কোটা এবং বিধায়ক কোটা থেকে করোনা উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবিলায় টাকা বরাদ্দ করেছেন। আর তারই পাশাপাশি বিভিন্ন ক্লাব ও স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাও এগিয়ে আসতে শুরু করেছেন তাঁদের সামর্থ্য অনুযায়ী। গত কয়েকদিনে কেবলমাত্র বর্ধমান উত্তর বিধানসভার বিধায়ক নিশীথ মালিকের কাছেই তাঁর বিধানসভা এলাকার প্রায় ২০ টিরও বেশি ক্লাব তাঁদের বরাদ্দ অর্থের চেক তুলে দিয়েছেন। রবিবার বর্ধমানের বৈকুণ্ঠপুর ১নং গ্রাম পঞ্চায়েত ৫০ হাজার টাকা এবং নবস্থা সমবায় সমিতি ২০ হাজার টাকার চেক তুলে দিল বিধায়কের হাতে।

অন্যদিকে দুর্গাপুরের ৩২ নং ওয়ার্ডের পলাশডিহায় যুব গোষ্ঠী ক্লাবের পক্ষ থেকেও ৫ হাজার টাকার একটি চেক তুলে দেওয়া হয় স্থানীয় কাউন্সিলর/ পৌরপিতা, মানস রায় এর হাতে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে জন্য। এদিন ক্লাবের পক্ষ থেকে জানানো হয় যে তারা ক্লাবে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের জন্য যে টাকা এতদিন পর্যন্ত সঞ্চয় করে রেখেছিলেন সেখান থেকেই আপাতত ৫ হাজার টাকার একটি চেক পৌরপিতা মানস রায় মহাশয় এর হাতে দেওয়া হল, ভবিষ্যৎ তারা নিজেদের সদস্যদের কাছ থেকে চাঁদা তুলে আরো বড় টাকার অনুদান দিতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন । স্থানীয় ৩২ নং ওয়ার্ডের পৌরপিতা মানস রায় জানান মানুষের পাশে সবসময়ই পলাশডিহা যুবগোষ্ঠী ছেলেরা আছেন তাদের এই মহৎ কাজ কে তিনি সাদর অভ্যর্থনা জানান।

আর এক দিকে করোনার জেরে রাজ্যের মানুষের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন কাঁকসার রাজবাঁধের মা দুর্গা নার্সিং হোমের মালিক স্বরূপ কুমার খাঁ। মুখ্যমন্ত্রীর ত্রান তহবিলে এদিন তিনি এক লক্ষ টাকার চেক প্রদান করলেন। তিনি জানিয়েছেন বর্তমানে রাজ্যের যা পরিস্থিতি তাতে সকল মানুষকে রাজ্যের পাশে দাঁড়ানো উচিৎ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here