নির্বাচনী পরিস্থিতি পর্যবেক্ষনে জেলায় পুলিশ অবজারর্ভার, সীমান্তে কড়া নজরদারি

0
740

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ জেলায় লোকসভা ভোটের প্রাক্কালে ছোট বড়ো নানান রাজনৈতিক সমস্যা লেগেই রয়েছে। প্রায়শই বিভিন্ন সমস্যার কবলে পড়ছে বিরোধী দলগুলি সহ শাসক দলের প্রার্থী থেকে শুরু করে কর্মী সমর্থকেরা। তাই প্রাক নির্বাচনী পরিস্থিতি সরজমিনে খতিয়ে দেখতে বৃহস্পতিবার বাঁকুড়া জেলায় এলেন পুলিশ অবজারর্ভার সতীন্দ্র পাল সিং। এদিন তিনি জেলায় পৌঁছে সরাসরি জেলার মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের দফতরে পৌঁছান। রাজনৈতিক দলগুলির মধ্যে হিংসাত্মক ঘটনা এড়াতে বা কোনওরকম অশান্তিকর পরিবেশ যাতে না ঘটে সেই কারণেই জেলায় পুলিশ অবজারর্ভারের আগমন বলে মনে করা হচ্ছে। নির্বাচন প্রক্রিয়া শান্তিপূর্নভাবে শেষ করতে বদ্ধ পরিকর নির্বাচন কমিশন, তাই ভোটের প্রাক্কালে কোনওরকম অশান্তি যাতে না হয় সেইকারনেই এই পদক্ষেপ। এদিন জেলার মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক দপ্তর থেকে বেরিয়ে শহরের সার্কিট হাউসে জেলার প্রাক নির্বাচনী পরিস্থিতি নিয়ে জেলা আধিকারিক ও পুলিশ আধিকারিকদের সাথে আলোচনায় বসেন সতীন্দ্র পাল সিং। অন্যদিকে একইভাবে পুরুলিয়ায় জেলায় ভোটপর্বকে কেন্দ্র করে যাতে কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেইজন্য পুরুলিয়া-ঝাড়খন্ড সীমান্ত এলাকা গুলোতে তল্লাশি ও নজরদারি বাড়ালো জেলা পুলিশ| অযোধ্যা পাহাড়, বান্দোয়ান, বরাবাজার, সীমান্ত এলাকাগুলির পাশাপাশি মাওবাদী প্রবন এলাকাগুলিতে নজরদারি দ্বিগুণ করা হয়েছে। ভোট চলাকালীন আন্তঃরাজ্য দুষ্কৃতীদের দিকেও কড়া নজর রাখা হচ্ছে, যাতে ভোটের সময় তারা সক্রিয় হতে না পারে| পাশাপাশি ঝালদা এলাকায় সীমান্ত পার থেকে বেআইনি মাদক পাচার বন্ধ করার লক্ষ্যেও তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ| পুরুলিয়া মফস্বল, নিতুরিয়া ও রঘুনাথপুর সীমান্ত পার এলাকাগুলি অশান্তিপ্রবণ এলাকা হিসেবে পুলিশের খাতায় নাম রয়েছে সেইসঙ্গে ভোটের মুখে ওই এলাকাগুলিতে ঝামেলার আশ্নকাও করছে পুলিশ প্রশাসন| তবে পুলিশ সূত্রে জানা হয়েছে ভারতীয় নাগরিক বা বৈধ পথচারীদের কোনও সমস্যার মুখে পড়তে হবে না, বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে গাড়ি থামিয়ে তল্লাশি চালানোর কাজ চলছে। ঝাড়খন্ড থেকে আগত প্রতিটি রাস্তায় এরকমই নাকা চেকিং বসানো হয়েছে।