মল্লরাজের আর নেই সেই রাজ্যপাট,নেই রাজত্ব, রয়ে গেছে দ্বন্দ্ব

0
474

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাঁকুড়া :

বিষ্ণুপুরের মল্লরাজ টেরাকোটার গায়ে, রাজপথে,ই তিহাসের পাতায় পাতায় যার রাজ কাহিনী সারা দেশে ছড়িয়ে আছে, সেই রাজ্যপাট আর নেই। নেই রাজত্ব। কিন্তু রাজা কে? কারা রাজ বংশের উত্তরাধিকারী সেই নিয়ে দ্বন্দ্ব রয়েই গেছে।

বিষ্ণুপুরের মৃন্ময়ী দেবীর পুজোর ইতিহাস সবচেয়ে প্রাচীন। এই পুজোতে কামানের তোপ দেগে পালিত হয় অষ্টমীর দিন। ওই কামানের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে এক পক্ষ।

অমিতাভ সিংহ দেবের দাবি, পূজো আমরা চাই, আমার স্ত্রীকে আমাকে আমার ভাইপো আমাদের পরিবারের সলককে মন্দির থেকে বাইরে বের করে দেয়, এমন কি আমার ভাইপোকে মারধোরও করা হয়। তিনি আরও বলেন, পূজো নিয়ম মেনে করেনা
ওই কামানের কোন বৈধতা নেই। কামন দাগার ফলে যদি কোনো অঘটন ঘটে তার দ্বায়িত্ব কে নেবে এছাড়াও তার অভিযোগ তারাই প্রকৃত রাজবংশীয়। তাদের নামই মতো মন্দিরের গায়ে লেখা আছে।

আরও পড়ুন: বিদ্যাসাগরের কলকাতার বাড়িতে হবে সংগ্রহশালা, আকাদেমী

এদিকে অপর পক্ষ সলিল সিংহ ঠাকুরের দাবি তারাই প্রকৃত রাজবংশীয়। এই অভিযোগে ভিত্তিহীন। আর যে কামানের বিরুদ্ধে অভিযোগ সেটাও ভিত্তিহীন। এইটা বিষ্ণুপুর মল্লরাজাদের পরম্পরা। এটা বন্ধ করার চক্রান্ত শুনে মানুষ ছিছি করছে।

বিষ্ণুপুরের মহকুমা শাসক জানান, এটা সম্পূর্ণ ওদের পারিবারিক সমস্যা। আর কামানের বৈধতা বিষয়ে যে সমস্যা রয়েছে। সেটা খতিয়ে দেখা হবে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here