ফোনে বচসার জেরে ১৪ তলা থেকে ঝাঁপ চিকিৎসকের, মৃত্যুতে বাড়ছে রহস্য

0
516

সংবাদদাতা, কলকাতাঃ- আবাসনের ১৪ তলার বারান্দা থেকে লাফিয়ে আত্মঘাতী হলেন এক চিকিৎসক। এই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে কলকাতার নিউটাউনের আকাংখা মোড় এলাকায়। হেমেন্দ্রকুমার চৌধুরি নামে এই চিকিৎসক বেশ কয়েকদিন যাবৎ তাঁর স্ত্রী ডাঃ ভূমিকা ভাবনা চৌধুরির সাথে নিউটাউনের এই আবাসনে থাকতেন। এদিন হেমেন্দ্রকুমার বাবু ঘরের প্রয়োজনীয় দ্রব্য আনতে বাজারে গিয়েছিলেন। কিন্তু বাড়িতে ফিরে হেমেন্দ্রকুমার বাবু হঠাৎই অদ্ভুত আচরন করতে থাকেন। এমনকি বাড়িতে বসে তিনি মদ্যপানও করেন। স্ত্রী ভূমিকা ভাবনা বাঁধা দিতে গেলে দুজনের মধ্যে ব্যাপক বচসা শুরু হয়ে যায়। এরপরই হেমেন্দ্রকুমার বাবু তাঁর স্ত্রী কে আবাসন থেকে বের করে দেন এবং ঘরের ভেতর থেকে দরজা আটকে দেন। এরপর ঘরের মধ্যে তিনি ব্যাপক ভাঙচুর চালান। তৎক্ষনাৎ ভূমিকা দেবী স্থানীয় প্রতিবেশীদের ব্যাপারটি জানান। খবর দেওয়া হয় নিউটাউন থানায়। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে হেমেন্দ্রকুমার বাবু ঘরের দরজা বন্ধ করে ফোনে কারোর সাথে কথা বলছিলেন। এবং তিনি প্রচন্ড উত্তেজিত হয়ে গেছিলেন। পুলিশ বিভাগের তরফ থেকে হেমেন্দ্রবাবুকে একাধিক বার দরজা খোলার জন্য বলা হয়। খবর পৌঁছানো হয় দমকল বিভাগকেও। এই পরিস্থিতিতেই আচমকাই আবাসনের ১৪ তলার বারান্দা থেকে ঝাঁপ দেন ওই চিকিৎসক। ইতিমধ্যেই পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। কিন্তু কার সঙ্গে হেমেন্দ্রবাবু ফোনে কথা বলছিলেন? কি নিয়েই বা তাদের চরম বচসা বাঁধে? কেনই বা হেমেন্দ্রবাবু আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন? এ বিষয় জানতে পুলিশ মৃতেরে স্ত্রীর সাথে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে। পুলিশ জানিয়েছে তদন্তের জন্য খতিয়ে দেখা হবে মোবাইল ফোনটিও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here