রহস্যময় জন্তুর পায়ের ছাপ দক্ষিণবঙ্গের জঙ্গলে

0
572

সংবাদদাতা,পশ্চিম মেদিনীপুরঃ- গত পাঁচ দিন ধরে অজানা জন্তুর পায়ের ছাপ মেলার পাশাপাশি জঙ্গলে মিলেছে ছাগলের আধখাওয়া দেহ। তার উপর নিখোঁজ একটি ভেড়া। অজানা জন্তুর আতঙ্কে কাঁপছে লালগড়ের জঙ্গল সংলগ্ন গ্রামগুলির মানুষজন। আতঙ্ক কাটাতে ময়দানে নামলেও ওই পায়ের ছাপ আসলে কোন জন্তুর তা এখনও সঠিকভাবে জানাতে পারেনি বন দফতর। বনদপ্তরের মতে জন্তুটি হায়না বা নেকড়ের হতে পারে। এদিকে অজানা ওই জন্তুকে নিজের চোখে দেখেছেন বলে দাবি করেছেন গ্রামের অনেকে। অনেকের মতে একটি নয় দুটি অজানা হিংস্র জন্তু ঘোরাফেরা করছে এলাকায়। কন্যাবলি গ্রামের বাসিন্দা বৃদ্ধা বিমলা মাহাতোর দাবি দুপুরে জমিতে কাজ করতে গিয়েছিলেন । সেই সময় একটি প্রাণীকে তার দিকে আসতে দেখেন। সঙ্গে সঙ্গে লোকজন ডাকতে শুরু করলে সেই চেঁচামেচিতে পালিয়ে যায় প্রাণীটি। তবে বৃদ্ধার বক্তব্য তিনি একই রকম দুটি জন্তু দেখতে পেয়েছিলেন। যদিও জঙ্গল লাগোয়া গ্রামের বাসিন্দাদের একাংশের দাবি এলাকায় বাঘ ঘোরাফেরা করছে। তাদের মতে, এলাকায় যদি হায়না বা নেকড়ে থাকত, তাহলে আগেও এই পায়ের ছাপ দেখা যেত। তাছাড়া, এক্ষেত্রে পায়ের ছাপ অস্বাভাবিক বড়। অন্যদিকে বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ নীলাঞ্জন রায়চৌধুরী এই প্রসঙ্গে জানান, যে পায়ের ছাপ লালগড়ে দেখা যাচ্ছে সেটা কুকুর প্রজাতির বলেই মনে করা হচ্ছে, বিড়াল প্রজাতির নয়।

এদিকে লালগড়ের আতঙ্ক পৌঁছে গেছে বাঁকুড়ার জঙ্গলমহলের গ্রামগুলিতেও। একে তো হাতির আতঙ্ক ছিলই। তার উপর নতুন করে জুড়েছে অজানা জন্তুর আতঙ্ক। ফলে সন্ধ্যে নামলেই ভয়ে গৃহবন্দী হয়ে থাকছেন জঙ্গল লাগোয়া গ্রামের বাসিন্দারা। পাশাপাশি জঙ্গল লাগোয়া বহু মানুষের জীবন জীবিকা চলে শালপাতা ও কাঠ কুড়িয়ে। অজানা জন্তুর ভয়ে তারাও জঙ্গলে যেতে সাহস পাচ্ছেন না।

অনেকেই মনে করছেন ফের ২০১৮-র আতঙ্ক ফের ফিরে এসেছে। ঠিক এভাবেই ২০১৮ সালের প্রথম দিকে অজানা জন্তুর পায়ের ছাপ পাওয়া গিয়েছিল লালগড়ে। পরে গ্রামের গবাদি পশুর উপর আক্রমণ এবং তাদের খুবলানো দেহ উদ্ধার হয়েছিল। তদন্তে নেমে বনদপ্তর ট্র্যাপ ক্যামেরা বসায় জঙ্গলে। এরপরই আশঙ্কা সত্যি করে ক্যামেরায় ধরা পড়ে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের ছবি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here