মোদির করোনা ত্রাণঃ ভাবুন, একটু ভাবা প্র্যাকটিস করুন দয়া করে

0
393

বীরুপাক্ষ সেন -এর হিসেবনিকেশ

আজ কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন করোনা মোকাবিলায় ১ লক্ষ ৭০ হাজার কোটির প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন। আসুন দেখি সেই প্যাকেজের হিসেবখানা।

১. প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ প্রকল্পের আওতায় এত দিন ৮০ কোটি মানুষ প্রতিমাসে বিনামূল্যে ৫ কেজি চাল অথবা গম পেতেন। আগামী তিন মাস অতিরিক্ত আরও ৫ কেজি চাল অথবা গম দেওয়া হবে তাঁদের। দেওয়া হবে অতিরিক্ত ১ কেজি ডালও।

তার মানে এ বাবদ আগামী তিন মাসে সরকারের অতিরিক্ত খরচ (৮০ কোটিX ৫ কেজিX ৩ মাসX ৩০ টাকা + ৮০ কোটিX ১ কেজিX ৩ মাসX ৮০ টাকা) = (৩৬ হাজার + ১৯ হাজার ২০০) কোটি টাকা = ৫৫ হাজার কোটি টাকা প্রায়।

২. জরুরি পরিস্থিতিতে কেউ চাইলে নিজের কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ডের ৭৫ শতাংশ অথবা তিন মাসের বেতন (যে অঙ্ক কম হবে), তা আগাম তুলতে পারবেন।

এই টাকা কর্মচারীর নিজের টাকা। তিনি যদি তা তুলে নিতে বাধ্য হন, তাহলে সরকারের সুদ বাবদ খরচ কমবে। এখানে সরকারের নিজস্ব দেয় কিছুই নেই।

৩. যে সমস্ত সংস্থার কর্মীসংখ্যা ১০০-র কম এবং সংস্থার ৯০ শতাংশ কর্মীর বেতন ১৫ হাজারের কম, তাদের হয়ে কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ডে ২৪ শতাংশ টাকাই জমা দেবে কেন্দ্র। অর্থাৎ নিয়োগকর্তা এবং কর্মী, দু’পক্ষের হয়েই কেন্দ্র টাকা দেবে।

যদিও এ টাকা পরবর্তীকালে সংস্থার থেকে কেটে নেওয়া হবে কি না, সে সম্পর্কে স্পষ্ট কিছু জানানো হয়নি। দ্বিতীয়ত যেখানে এই সংস্থাগুলোতে কর্মচারী ছাঁটাই চলছে জোরকদমে, সেখানে এই সুবিধার আওতায় কতজন আসবেন এবং সে বাবদ সরকারের ব্যয়ের পরিমাণ আদৌ স্পষ্ট নয়।

৪. প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনার আওতায় আগামী তিন মাসের জন্য বিপিএল পরিবারগুলিকে বিনামূল্য রান্নার গ্যাসের সিলিন্ডার দেওয়া হবে।

যেহেতু এই পরিবারগুলোতে আগামী তিন মাসে সর্বোচ্চ ২টি গ্যাস সিলিন্ডার লাগতে পারে, তাই এ বাবদ খরচ হতে পারে ১০ লাখX ২টি সিলিন্ডারX ৫০০ টাকা = ১০০ কোটি টাকা।

৫. জনধন অ্যাকাউন্ট রয়েছে যে মহিলাদের, তাঁদের আগামী তিন মাসের জন্য ৫০০ টাকা করে দেওয়া হবে। এতে ২০ কোটি মহিলা উপকৃত হবেন।

এ বাবদ খরচ হবে ২০ কোটি X৩ মাস X ৫০০ টাকা = ৩০ হাজার কোটি টাকা

৬. ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তি, বিধবা এবং প্রতিবন্ধিদের অতিরিক্ত ১০০০ টাকা করে দেওয়া হবে প্রতিমাসে। দু’দফার কিস্তিতে এই টাকা মিলবে।

এই সংখ্যাটা কত তা অর্থমন্ত্রী বলেননি, যেমন বলেননি সে বাবদ কত খরচ হতে পারে।

৭. ১০০ দিনের কাজের আওতায় শ্রমিকদের পারিশ্রমিক বাড়িয়ে ২০২ টাকা করে দেওয়া হবে।

আইন মেনে এই প্রকল্পে প্রতি বছর এপ্রিল মাস থেকে শ্রমিকদের মজুরি বাড়ানো হয় ৷ কাজেই এ বাবদে সরকারের অতিরিক্ত খরচ নেই।

৮. প্রধানমন্ত্রী কৃষি যোজনার আওতায় বছরে ৬ হাজার টাকা করে পান কৃষকরা। বর্তমান পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহেই তা থেকে কৃষকদের অ্যাকাউন্টে ২ হাজার টাকা করে জমা পড়বে।

এই যোজনায় কৃষকরা বছরে যে ৬ হাজার টাকা পেতেন সেটাই পাবেন। কেবল তার মধ্যে ২ হাজার টাকা অগ্রিম দেওয়া হবে ৷ কাজেই এ বাবদেও সরকারের অতিরিক্ত খরচ নেই।

৯. আক্রান্ত এবং জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত ডাক্তার নার্সদের জন্য আগামী তিন মাস মাথাপিছু ৫০ লক্ষ টাকার বিমা।

আক্রান্ত হলে তবেই এই বিমা প্রযোজ্য হবে, অন্যথায় নয়। কাজেই এ বাবদে কেবল প্রিমিয়ামটুকু দেওয়া ছাড়া সরকারের খরচ খুব একটা হবে না ।

তাহলে দেখা যাচ্ছে আগামী তিন মাসে করোনা মোকাবিলায় সরকারের সম্ভাব্য খরচ হতে পারে (৫৫ হাজার+ ৩০ হাজার) কোটি টাকা বা ৮৫ হাজার কোটি টাকা। যদি অন্যান্য খাতে সম্ভাব্য ব্যয় আরও ১৫ হাজার কোটি টাকা হয়, তবে বাকি ৭০ হাজার কোটি টাকা কোথায়?

ভাবুন, ভাবা প্র্যাকটিস করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here