পর পর মৃত্যু, স্ক্র্যাব আতঙ্ক মুর্শিদাবাদে

0
1113

সংবাদদাতা, বহরমপুরঃ- ডেঙ্গু নয়, স্ক্র্যাব টাইফাসের আক্রমনে এবার উদ্বিগ্ন মুর্শিদাবাদ জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর। সম্প্রতি স্ক্র্যাব টাইফাস আক্রান্ত দুই রোগীর মৃত্যুর পর আতঙ্ক ছড়াচ্ছে জেলার বেশ কিছু ব্লকেও। জঙ্গিঁপুর মহাকুমা হাসপাতালে তিন জন আর বহরমপুরের মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঁচজন স্ক্র্যাব টাইফাস আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা হচ্ছে। স্বাস্থ্য কর্তারা জানান, “এই রোগ মানুষের শরীরে ঢোকে পোকার কামড় থেকে। ব্যাকটেরিয়া বাহিত রোগের উপসর্গ হল লাগাতার জ্বর আর শরীরে বিড়ি, সিগারেটের ছ্যাঁকার মতো কালো ফোস্কা বা দাগ। এর বেশ কিছু উপসর্গ ডেঙ্গুর সাথে মিলে যায়, ফলে গোড়ায় চিকিৎসকেরা বিভ্রান্ত হয়ে পড়েন”।
দার্জিলিং, কাশিয়াং এ স্ক্র্যাব টাইফাস বহু পুরনো রোগ। কিন্তু দিন কে দিন স্ক্র্যাব ব্যাকটেরিয়া দক্ষিনবঙ্গের বেশ কিছু জেলাতেও থাবা বসাচ্ছে। মুর্শিদাবাদের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রশান্ত বিশ্বাস জানান,” একটা জিনিস ভাল যে সময়মতো ধরা পড়লে এর চিকিৎসা সম্ভব। ওষুধ রয়েছে”। তিনি বলেন,” বেশ কয়েকটি স্ক্র্যাব টাইফাসের রোগীর সন্ধান মেলায়, আমরা এখন টানা জ্বর আর গায়ে গুটি নিয়ে আসা রোগী এলেই, ডেঙ্গুর পাশাপাশি স্ক্র্যাব র পরীক্ষারও নির্দেশ দিয়েছি মহাকুমা হাসপাতাল গুলিকে।”
জেলার স্বাস্থ্য কর্তারা জানাচ্ছেন, শনিবার নবগ্রামের বাসিন্দা অমৃত কুন্ডু মারা জান স্ক্র্যাব আক্রমনে। সেই কালীপুজোর সময় থেকে টানা জ্বরে ভুগছিলেন তিনি। আবার এখানকারই ডাঙ্গাপাড়ার বাসিন্দা মহাদেব মণ্ডলও স্ক্র্যাবের শিকার হয়ে মারা যান কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে।
বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, স্ক্র্যাবের ব্যাকটেরিয়া বহনকারী পোকা মুলতঃ থাকে মাঠে, ঝোপে এবং দীর্ঘদিন ধরে পড়ে থাকা অপরিষ্কার কাঠের আসবাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here