নতুন মিষ্টি “পুডিং ভাপার” স্বাদ নিতে চন্ডিদাসের নিউ পূর্ণিমা সুইটসে উপচে পড়া ভিড়

0
1809

নিজস্ব সংবাদদাতা, দুর্গাপুরঃ- বাঙালির মিষ্টি প্রেম নতুন করে বলার কিছু নেই। সারা বাংলা জুড়ে একাধিক জায়গায় একাধিক মিষ্টি বিখ্যাত হয়ে রয়েছে । কিছুদিন আগেই বাংলার রসগোল্লা জি আই মার্ক পেয়েছে। বর্ধমানের মিহিদানা ও সিতাভোগ জি আই মার্কের জন্য অনুমোদনের জন্য গেছে , তেমনি বাঁকুড়ার বিখ্যাত মেচা সন্দেশ জি আই মার্ক পেতে তোড়জোড় শুরু করে দিয়েছে।

পশ্চিমবাংলায় মিষ্টান্ন শিল্প এখন উন্নতমানের মিষ্টি এনে সাধারণ বাঙালি তথা বিদেশে বসবাসকারী প্রবাসী বাঙ্গালীদের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছে । প্রযুক্তির সাথে তাল মিলিয়ে ইতিমধ্যেই বহু মিষ্টান্ন প্রতিষ্ঠানে বসেছে অত্যাধুনিক যন্ত্রচালিত মিষ্টান্ন প্রস্তুত। পিছিয়ে নেই শিল্পাঞ্চল দুর্গাপুরের মিষ্টান্ন প্রতিষ্ঠানগুলিও। দুর্গাপুর শহরে বেশ কয়েক বছর ধরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে মিষ্টান্ন মেলা । কোভিড কালে গত এক দু বছর বন্ধ রয়েছে এই মিষ্টান্ন মেলা । কিন্তু শিল্পাঞ্চলবাসীর মনে মিষ্টান্ন মেলা এখনো আকাঙ্ক্ষিত ।

দুর্গাপুরের বি-জোন চন্ডীদাস বাজারে নিউ পূর্ণিমা সুইটসে এখন আট থেকে আশি ভিড় জমছে এক নতুন মিষ্টির স্বাদ নেওয়ার জন্য। “পুডিং ভাপা” নামে এই মিষ্টিটি সম্পূর্ণ নিজস্ব প্রযুক্তি ও পদ্ধতিতে তৈরি করেছেন নিউ পূর্ণিমা সুইটস এর কারিগররা । সারা বছরেই কম বেশী ভিড় লেগেই থাকে নিউ পূর্ণিমা সুইটসে । কিন্তু ইদানীংকালে লক্ষ্মী পুজোর দিন থেকে এই নতুন মিষ্টি “পুডিং ভাপার” স্বাদ নেওয়ার জন্য ভিড় জমছে আট থেকে আশির এই দোকানে।

নিউ পূর্ণিমা সুইটস এর কর্ণধার রাজু বাবু জানান ” আমাদের দোকানে অনেক রকমের মিষ্টি পাওয়া যায় । আমাদের ক্রেতারা সব সময় আমাদেরকে নতুন কোন মিষ্টি পরিবেশন করার ইচ্ছা প্রকাশ করে থাকেন। আমরাও সর্বদা চেষ্টা করি আমাদের ক্রেতাদেরকে স্বল্পমূল্যে উন্নত মানের স্বাস্থ্যকর মিষ্টি উপহার দিতে চাই। তাই আমরা এবার এই নতুন মিষ্টি ” পুডিং ভাপা” নিয়ে এসেছি আমাদের ক্রেতাদের জন্য। আমাদের ক্রেতাদের মধ্যে একাধিক মানুষ এমন আছেন যারা মধুময় বা সুগারের রোগী, কিন্তু ডাক্তারের হাজার বারন করা সত্বেও তারা মিষ্টি খাওয়া থেকে বিরত থাকতে রাজি নন। আমরা তাই এই নতুন মিষ্টি ” পুডিং ভাপা” নিয়ে এসেছি সেই সব মানুষ জনের জন্য যারা কম মিষ্টতার মিষ্টি পছন্দ করেন। কিন্তু এখানে বলে রাখা ভালো যে মিষ্টিতে মিষ্টি থাকবে না তা কি আবার হয়। তবুও আমরা আমাদের চেষ্টাতে ত্রুটি রাখিনি যাতে মিষ্টান্ন গুলিতে মিষ্টতার পরিমাণ কম থাকে। আমরা সমস্ত শিল্পাঞ্চলবাসীর কাছে অনুরোধ জানাব একবার আমাদের দোকানে এসে এই নতুন মিষ্টি “পুডিং ভাপা” স্বাদ গ্রহণ করতে। এই নতুন মিষ্টিতে আমরা ছানা ,কাজু , মৌরি ও বিভিন্ন ধরনের সামগ্রী দিয়ে তৈরি করেছি যা নিঃসন্দেহে স্বাস্থ্যকর ও সুস্বাদু , দাম ও খুব বেশি নয়।”

দুর্গাপুরের মিষ্টান্ন শিল্পে যে এক নতুন বিপ্লব এসেছে তা কয়েক বছর ধরে লক্ষ্য করা যাচ্ছে ,বহু রকমের ফিউশন মিষ্টি ইতিমধ্যেই দুর্গাপুরের বহু মিষ্টান্ন ভান্ডার পাওয়া যায় যা উন্নতমানের সামগ্রী দিয়ে তৈরি ও সুস্বাদু । দুর্গাপুর শিল্পাঞ্চলের মিষ্টান্ন প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলির এই প্রয়াস নিঃসন্দেহে প্রশংসার অধিকারী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here