আগামী বিধানসভা নির্বাচনে দুর্গাপুরে দুটি আসনে নতুন মুখ হিসাবে বিশিষ্ট ব্যক্তিদের প্রার্থী করে বাজিমাত করতে চায় সিপিএম

0
1121

অমল মাজি, দুর্গাপুরঃ- ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে ইতিমধ্যে সব কটি রাজনৈতিক দল। প্রতিটি দলের আন্দনমহলেই চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে সিপিএম এখন অন্যদের থেকে অনেকটাই এগিয়ে। সিপিএম অন্দরমহলের বক্তব্য, কংগ্রেস সিপিএম জোট হলে দুর্গাপুরে দুটি কেন্দ্রেই মূলত বাম মনোভাবাপন্ন সমাজের কোনও বিশিষ্ট মানুষকে প্রার্থী করা হতে পারে। যারা কংগ্রেস এবং বাম উভয়ের কাছেই গ্রহণযোগ্য। কারণ, গত নির্বাচনে তৃণমূল থেকে বেরিয়ে কংগ্রেসে যোগ দেওয়া জোট প্রার্থী বিশ্বনাথ পাড়িয়াল পরবর্তী সময়ে ‘ঝাঁকের কই ঝাঁকে ফেরা’র মতো কংগ্রেস বিধায়ক হয়েও তৃণমূলে ফিরে যাওয়াতে সিপিএম, বিশেষত বাম ছাত্র-যুবদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। এখন তারা চাইছেন, এবার আর কংগ্রেস নয়, বামেরা দুর্গাপুর পশ্চিম আসনে প্রার্থী দিক। এই দাবিকে মাথায় রেখে সিপিএম নেতৃত্ব ইতিমধ্যে প্রস্তুতি নিতে শুরু করে দিয়েছে। অপরদিকে, ২০১৬র নির্বাচনে সিপিএম দুর্গাপুর পুর্ব আসন জয় করেছিল। মূলত তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে এবং অন্তর্ঘাতের ফলেই তৃণমূল প্রার্থীর হার হয়েছিল। বিক্ষুব্ধ তৃণমূলীদের ভোট গিয়ে পড়েছিল বিজেপি’র ঘরে। সেবার বিজেপি প্রার্থী ছিলেন জেলা সভাপতি লক্ষণ ঘোড়ুই। তিনি তৃণমূল ভোটের প্রায় দশ শতাংশ ভোট নিজের ঝুলিতে টেনে নেওয়ায় দুর্গাপুর পুর্ব আসন হাতছাড়া হয় তৃণমূলের। তার ফলে ভোট কাটাকাটিতে মাঝখান থেকে জয়ী হয়ে যান সিপিএম প্রার্থী সন্তোষ দেবরায়। এদিকে, আগামী ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনেও সিপিএম দুর্গাপুর পুর্ব আসন ধরে রাখতে মরিয়া চেষ্টা চালাবে সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। সেই অনুযায়ী এখন থেকে গুঁটি সাজাচ্ছে সিপিএম। দলের অন্দরমহলে আলোচনায় উঠে আসছে, বর্তমান বিধায়ক সন্তোষ দেবরায়কে এবার আর প্রার্থী নাও করতে পারে সিপিএম। শোনা যাচ্ছে, তার জায়গায় নতুন মুখ আনা হতে পারে। দুর্গাপুর পুরসভার দশটি ওয়ার্ড এবং ইস্পাত নগরীর পুরোটাই রয়েছে এই বিধানসভার এলাকার মধ্যে। তবে এই এলাকাই সিটুর প্রভাব বেশি। তাই সিটু নেতারা চাইছেন, এই এলাকা থেকেই সিটুর কোনও নেতাকে প্রার্থী করা হোক। সূত্রের খবর, প্রার্থী বাছাই নিয়ে ইতিমধ্যে লবির খেলা শুরু হয়ে গিয়েছে। উঠে আসছে অনেকের নাম। তারা সবাই এক্কেবারে নতুন মুখ। বিধাননগরের বাসিন্দা এক সিপিএম নেতা বেশ জনপ্রিয় দুর্গাপুরে। তার নাম উঠে আসছে প্রার্থীর জল্পনায়। নতুন মুখের মধ্যে অনেকেই আবার চাকরি করেন। সুত্রের খবর, দল প্রার্থী করলে চাকরি ছাড়তে রাজি এইসব বড় মাপের সিপিএম নেতারা। তবে পশ্চিম বর্ধমান জেলা সিপিএম নেতৃত্ব এ বিষয়ে মুখ খুলতে নারাজ। তবে শোনা যাচ্ছে, এখানে প্রধান দাবিদার জোনাল কমিটির পঙ্কজ রায় সরকার। আর পঙ্কজকে যদি প্রার্থী করা না হয়, সে ক্ষেত্রে প্রার্থী করা হতে পারে সর্বজনপ্রিয় কোনও লেখক, সাহিত্যিক, শিল্পী বা কোনও বিশিষ্ট ব্যক্তিকে। তবে সময় বলবে দুর্গাপুর পুর্ব এবং পশ্চিম আসনে নতুন মুখ কাদের আনবে সিপিএম। তবে সংঠনের শক্তি বাড়াতে, এবং শিল্পাঞ্চল দখল করতে মরিয়া হয়ে উঠছে বাম শিবির।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here