সেফটিপিন গলায় আটকে গেলেও চিকিৎসকদের হাতে প্রানে বাঁচলেন বৃদ্ধা

0
202

সন্তোষ মন্ডল, আসানসোলঃ- বাড়িতে মুড়ি খাওয়ার সময় অসাবধানতায় খোলা সেফটিপিন খেয়ে ফেলেছিলেন আসানসোলের জামুড়িয়ার বাসিন্দা ৬০ বছরের বৃদ্ধা তারা রাউত। অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে সেই খোলা সেফটিপিন বার করলেন আসানসোল জেলা হাসপাতালের নাক, কান, গলা বিশেষজ্ঞ বা ইএনটি সার্জেন ডাঃ বীরেশ্বর মন্ডল। চিকিৎসাশাস্ত্রে এই অস্ত্রপচারকে বলা হয় “ইসোফেগোসকপি”। ডাঃ মন্ডলের সঙ্গে ছিলেন জেলা হাসপাতালের এ্যানাসথেটিক্স ডাঃ জাহাঙ্গীর মল্লিক। ঝুঁকি নিয়ে করা এই অস্ত্রোপচার সফল হওয়ায় বৃদ্ধা প্রাণে যে বাঁচলেন তা বলা যেতেই পারে। জেলা হাসপাতাল স্তরে সাধারণত এই ধরনের অস্ত্রোপচার করা হয় না। এই ধরনের অস্ত্রোপচার সাধারনত মেডিক্যাল কলেজ বা সুপার স্পেশালটি বেসরকারি হাসপাতাল বা নার্সিং হোমে হয়। সেক্ষেত্রে তা যথেষ্টই ব্যয়বহুলও।

এই ধরনের অস্ত্রোপচার করে থাকেন কার্ডিওথোরাসিক সার্জেনরা। সেইদিক থেকে বলা যেতেই পারে যে, আসানসোল জেলা হাসপাতালের ইএনটি সার্জেন এই অস্ত্রোপচার করে এক নজির গড়লেন। এই প্রসঙ্গে আসানসোল জেলা হাসপাতালের সুপার ডাঃ নিখিল চন্দ্র দাস বলেন, এই হাসপাতালের চিকিৎসকরা সীমাবদ্ধ ক্ষমতার বাইরে গিয়ে রোগীদের বাঁচানোর জন্য সবরকম চেষ্টা করছেন। ইএনটি বিভাগ তার মধ্যে অন্যতম। এতে বৃদ্ধা ও তার পরিবারের সদস্যরা হাসপাতালের চিকিৎসকদের এই কাজকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here