দোরগোড়ায় ১লা বৈশাখ, কেনাকাটায় ব্যস্ত রাজ্যবাসী

0
851

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ আগামীকাল রবিবার, তারপরের দিন সোমবার বাঙালীর ১লা বৈশাখ উৎসব। হাতে আর তেমন সময় নেই। তাই আগামী ১৫ই এপ্রিল অর্থাৎ ১লা বৈশাখ উপলক্ষ্যে রাজ্যবাসী ব্যস্ত পুজোর তোড়জোড়ে। তবে অফিস বা চাকুরিরত রাজ্যবাসীর জন্য এবারের ১লা বৈশাখ বেশ ভালো দিনেই পড়েছে। কারণ, মাসের দ্বিতীয় শনিবার ও রবিবার পরপর দুদিন ছুটি এমনকি ১লা বৈশাখ সোমবার পরায় সেইদিনও ছুটি সরকারি অফিস কাছারি। ফলে টানা তিনদিনের নিশ্চিন্ত ছুটি পেয়ে একদিকে ভালো হয়েছে বাড়ির কর্তাদের। কারণ এই তিনদিনের বাজার-ঘাট, পুজো-অর্চনা, দোকানে দোকানে নতুন খাতা করতে আর গিন্নীদের পেছনে সময় দিতে গিয়ে হিমশিম অবস্থা হয় বাড়ির কর্তাদের। ১লা বৈশাখ উপলক্ষ্যে শহরের বিভিন্ন বাজারগুলিতেই ধীরে ধীরে বাড়ছে ভিড়। বিশেষ করে ফল, মিষ্টি ও দশকর্মার দোকানগুলিতে ভিড় চোখে পড়ার মত। এদিকে সকাল হতেই চৈত্র-বৈশাখের সূর্যের প্রখর তেজ থেকে বাঁচতে বেশিরভাগ মানুষই বিকেলের পর বাজারমুখী হচ্ছেন। ফলে সন্ধ্যের দিকে তিল ধারনের জায়গা নেই শহরের বাজারগুলিতে। আবার বৈশাখের সময় কালবৈশাখীর ভয়ে অনেকেই আগেভাগেই বাজার সেরে রাখছেন। যদিও এবছরের পয়লা বৈশাখ মোটেই ভালো যাচ্ছে না বলে জানাচ্ছেন উত্তরবঙ্গের ব্যবসায়ীরা। জানা গেছে, সোমবার পয়লা বৈশাখের দুদিন পরেই জলপাইগুড়িতে লোকসভা ভোট, আর এই ভোটের জেরেই এবছর পয়লা বৈশাখের বাজারে ভাটা পড়েছে বলে জানাচ্ছেন জলপাইগুড়ির বাসিন্দারা। ভোটের মহোৎসবে মাথায় হাত পড়েছে জলপাইগুড়ি ব্যবসায়ীদের। বাজারে ঠিক মতো ক্রেতার দেখা নেই, অন্যদিকে পয়লা বৈশাখের বাজারের কথা ভেবে আগেভাবে মাল মজুত করে বিপাকে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। এরকম চললে বকেয়া টাকা-পয়সা তোলাও দুষ্কর হয়ে পড়বে বলে আশঙ্কায় ব্যবসায়ীরা। বহু ব্যবসায়ী ক্ষতি এড়াতে পয়লা বৈশাখের হালখাতার দিন পিছিয়ে অক্ষয় তৃতীয়ার দিনে করে দিয়েছেন। সব দেখেশুনে মনে হচ্ছে, কেন্দ্রে কোন সরকার ক্ষমতায় আসবে তা নিয়েই এখন বেশি দুশ্চিন্তায় উত্তরবঙ্গ।