মঙ্গলকোটে পালিত হলো পল্লী কবির জন্মদিন

0
209

জ্যোতি প্রকাশ মুখার্জ্জী, মঙ্গলকোটঃ- কবি, সাহিত্যিক, শিল্পী, খেলোয়াড়, শিক্ষাবিদ, অধ্যাপক, ইতিহাসবিদ, নাট্যকার, চিকিৎসক, সমাজসেবী, আইনজীবী, বাচিক শিল্পী, সাংবাদিক সহ সমাজের সমস্ত স্তরের মানুষের উপস্থিতিতে সত্যিকারের মিলন মেলা হয়ে উঠল বারো-তম ‘কুমুদ সাহিত্য মেলা’। কবির ১৩৮ তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে গত ৩ রা মার্চ ‘বাড়ি আমার ভাঙন ধরা অজয় নদের বাঁকে’-র অমর স্রষ্টা পল্লী কবি কুমুদরঞ্জন মল্লিকের মঙ্গলকোটের কোগ্রামের বসত ভিটে ‘মধুকর’ প্রাঙ্গণে আয়োজিত হয় এই সাহিত্য মেলা। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রায় তিন শতাধিক বিশিষ্ট ব্যক্তির উপস্থিতি এই সাহিত্য মেলার শোভা বর্ধন করে। স্বরচিত কবিতা পাঠ, সঙ্গীত, বাউল গান, পল্লী কবিকে নিয়ে আলোচনার সঙ্গে সঙ্গে গুণী ব্যক্তিদের সম্মাননা প্রদান করা হয়। মেলা কমিটির পক্ষ থেকে এ বছর কবি মহাশ্বেতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘কুমুদ সাহিত্য রত্ন’ , সঙ্গীতশিল্পী সোনালি কাজীকে ‘নজরুল ইসলাম রত্ন’, শিক্ষাবিদ গৌতম তালুকদারকে ‘বিধান রায় রত্ন’, ইতিহাসবিদ সর্বজিত যশকে ‘সমীরণ চৌধুরী রত্ন’, আইনজীবী আনসার মন্ডলকে ‘নুরুল হোদা রত্ন’, আলোকচিত্রী গোপাল দেবনাথকে ‘সমীর ভট্টাচার্য রত্ন’ প্রাক্তন জাতীয় ভলিবলার দেব কুমার ঘোষকে ‘বর্ধমান রত্ন’, চিকিৎসক ডক্টর শিশির বিশ্বাসকে ‘রেজাউল করীম রত্ন’, নাট্যকার গোরাচাঁদ সেনগুপ্তকে ‘শান্তিনিকেতন রত্ন’, অধ্যক্ষ ডঃ মহম্মদ ইনামুর রহমানকে ‘ভাতার রত্ন’, বিশিষ্ট সমাজসেবী সৈয়দ জিয়াজুর রহমানকে ‘হুগলি রত্ন’, কবি বিশ্বনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় কে ‘মেমারি রত্ন’, তরুণ সাংবাদিক আজিজুর রহমানকে ‘গলসি রত্ন’ হিসাবে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এছাড়া ‘বাংলার খবরাখবর নিউজ নেটওয়ার্ক’-এর পক্ষ থেকে সাংবাদিক দ্বারকানাথ দাস, সাংবাদিক-শিক্ষক সাধন কুমার মন্ডল, সাংবাদিক আমিরুল ইসলাম সেখ, বাচিক শিল্পী নীপা চক্রবর্তী, শিশুসাহিত্যিক পার্থ মুখোপাধ্যায়, সাংবাদিক সেখ সামসুদ্দিন, সেখ নিজাম আলম, জ্যোতি প্রকাশ মুখার্জ্জী, শ্যামলাল মকদমপুরী, খায়রুল আনাম, সৈয়দ আজাহার আলি, সুভাষ মজুমদার, প্রবীর চট্টপাধ্যায়, প্রমুখদের হাতে স্মারক তুলে দেওয়া হয়। ডক্টর আর.এন.ঘোষ মেমোরিয়াল সোসাইটির তরফে দুজন কৃতি পড়ুয়াকে আর্থিক সাহায্য করা হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে বিশিষ্টদের উপস্থিতিতে দুর্গাপুর থেকে প্রকাশিত ‘আন্তরিক’ পত্রিকা গোষ্ঠীর পক্ষ থেকে কলসিতে পল্লী কবির বসতভিটে থেকে পবিত্র মাটি সংগ্রহ করা হয় । প্রসঙ্গত এই পত্রিকা গোষ্ঠী এর আগেও বাংলার অনেক মনীষীর বসত ভিটে থেকে মাটি সংগ্রহ করেছে। এই পত্রিকা গোষ্ঠী সাংবাদিক জ্যোতি প্রকাশ মুখার্জ্জীর হাতে স্মারক, মানপত্র, দুটি বই তুলে দিয়ে ও গলায় উত্তরীয় পড়িয়ে সম্মান জ্ঞাপন করে। অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট লোকসংগীত শিল্পী রফিকুল ইসলাম খানের বাউল গান ও অর্চনা সিংহরায়ের সঙ্গীত পরিবেশন সাহিত্য মেলায় অন্য মাত্রা এনে দেয়। সাহিত্য মেলাকে কেন্দ্র করে ভিড় হয় যথেষ্ট। আইজেএ সাংবাদিক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ দাস এই সাহিত্য মেলার জন্য উদ্যোক্তাদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। অনুষ্ঠানে আন্তরিক পত্রিকা গোষ্ঠীর সম্পাদিকা অন্তরা সিংহরায় কুমুদ সাহিত্য মেলা কমিটির কাছে কবির বসত ভিটেতে একটি আবক্ষ মূর্তি স্থাপনের আবেদন করেন। বিশিষ্ট আইনজীবী আনসার মণ্ডল কলকাতার বুকে এই ধরনের সাহিত্য মেলা করার জন্য অনুরোধ করেন। পরে মেলা কমিটির সম্পাদক মোল্লা জসিমউদ্দিন জানান, “আমরা অবশ্যই এই দুটি প্রস্তাব কিভাবে বাস্তবায়িত করা যায় তা নিয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করব।” তাকে সমর্থন জানান সাংবাদিক ধনঞ্জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। মেলা কমিটির পক্ষ থেকে জসিমউদ্দিন উপস্থিত ব্যক্তিদের ধন্যবাদ জানান।



     

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here