সরকারি নির্দেশ তুচ্ছ করে, কৌশলে ফি- বাড়াচ্ছে দুর্গাপুরের কিছু ইংরেজি মাধ্যম স্কুল

0
7057

মনোজ সিংহ, দুর্গাপুর:- করোনা রুখতে চলা টানা লকডাউন এবার সরাসরি ধাক্কা মারছে মানুষের রুটি-রুজিতে। যার প্রভাবে মধ্যবিত্ত, নিম্ন বিত্তের স্কুল পড়ুয়াদের ভবিষ্যত কে ঘিরেও অশনি সংকেত। সেই সংকট কাটাতে রাজ্য সরকার ইতিমধ্যে রাজ্যের স্কুল গুলিকে ফি- বৃদ্ধি না করার আদেশ জারি করেছে। আসানসোল- দুর্গাপুরের বেসরকারি ইংরেজি মাধ্যম স্কুল গুলির একটি বড় অংশ সেই মোতাবেক চলতি শিক্ষাবর্ষে ফি-না বাড়ানোর কথা ঘোষণা করলও, দলছুট কিছু স্কুল সদম্ভে ফি- বৃদ্ধির কথা ইতিমধ্যেই অভিভাবকদেরকে জানিয়ে দিয়েছে- যে নিয়ে অসন্তোষ দানা বেঁধেছে দুর্গাপুর জুড়ে।

এদিকে রাজ্যে “ব্যবসা করা” সমস্ত বেসরকারি স্কুলে আগামী তিন মাসের ফি- মওকুবের দাবি তুলে বিষয়টিতে সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছেন ” ইউনাইটেড গার্ডিয়ান্স ফোরাম নামে একটি সংগঠন। তাদের দাবি স্কুল পড়ুয়াদের অভিবাবকদের একটি বড় অংশ লকডাউন এর দরুন প্রায় উপার্জনহীন হয়ে আর্থিক সংকটে ভুগছেন। তাই ফি- মওকুব জরুরি। বিষয়টিতে অন-লাইনে সই সংগ্রহ শুরু করেছে সংগঠনটি।

এদিকে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সঙ্কটকালে ও ফি- বৃদ্ধির অভিযোগ উঠেছে দুর্গাপুরের হাতে গোনা কয়েকটি স্কুলের বিরুদ্ধে। দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানার দেওয়া খয়রাতি জমিতে পসার জমিয়ে শিক্ষা- ব্যবসা করা দুটি স্কুলের বিরুদ্ধে এই রকম অভিযোগ উঠেছে। যদিও ইস্পাত কর্তৃপক্ষের জমিতে গড়ে ওঠা ডি.এ.ভি মডেল স্কুল ইতিমধ্যেই বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়ে দিয়েছে কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে পরিস্থিতির কারণে তারা ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ফি- বৃদ্ধি মুলতুবি রেখেছেন। স্কুলের অধ্যক্ষা পাপিয়া মুখার্জী জানান “চলতি সংকট কালে অভিভাবকদের অসুবিধার কথা মাথায় রেখেই আমরা এ বছর এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছি।” ডি.এ.ভি ‘র পথেই হেঁটেছে এখানকার ফুলঝোর কার্মেল কনভেন্ট স্কুল। তবে, ইস্পাত নগরীর স্টিল কার্মেল স্কুলের বিরুদ্ধে ফি- বৃদ্ধির অভিযোগ উঠেছে। আবার, ওই স্কুলটি সুকৌশলে এপ্রিল ও মে মাসের টিউশন ফি আদায় পিছিয়ে দিয়ে চলতি শিক্ষাবর্ষে ফি- বৃদ্ধির ছক কষছে বলে দুর্গাপুর মহকুমা প্রশাসনের কাছে অভিযোগ জমা পড়েছে। সেন্ট- পিটারর্স নামে অন্য একটি স্কুল যারা ইস্পাত কারখানার জমিতে শিক্ষা- ব্যবসা করে শহরের এ-জোন এলাকায়, তারা সরাসরি অভিবাবকদের সমস্যাকে তুচ্ছ করে ফি- বৃদ্ধির বিজ্ঞপ্তি অভিভাবকদের মোবাইল নম্বরে পাঠিয়ে দিয়েছে। যে নিয়ে ক্ষুব্দ অভিভাবকরা। কিন্তু, লকডাউনের কারণে তারা স্কুলে গিয়ে ফি- বৃদ্ধির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা এখনি করছেন না বলে জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here