ক্যান্সার রোগীর স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের নাম করে ৪ লক্ষাধিক টাকা প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার অর্ণব মণ্ডল

0
815

সংবাদদাতা, বর্ধমানঃ- সারাদেশ যখন করোণা পরিস্থিতিতে গৃহবন্দী তখন এরই সুযোগ নিয়ে বেশ কিছু মানুষ এখন সাধারণ মানুষকে ঠকানোর কাজে লেগে পরেছেও। এমনই এক চাঞ্চল্যকর ঘটনার সাক্ষী রইল বর্ধমানের রায়না। একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষ থেকে রায়না ব্লকের প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড তৈরি করার দায়িত্বে ছিলেন অর্ণব মন্ডল নামে এক ব্যক্তি। গতকাল তাকে রায়না থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ, তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি এক অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক যিনি ক্যান্সারে আক্রান্ত তার কাছ থেকে চার লক্ষ টাকা নিয়েছেন স্বাস্থ্য সাথী কার্ড করে দেওয়ার নাম করে। অবসরপ্রাপ্ত ওই শিক্ষকের নাম গৌড় চন্দ্র দাস বলে জানা গেছে। তার স্ত্রী ও কিডনি সমস্যায় ভুগছেন বহুদিন ধরে রীতিমত ডায়ালিসিস নিতে হয় তাকে। স্বল্প পেনশনের টাকাতেই দুজনের স্বাস্থ্য চিকিৎসা করানোর খরচ জোগাড় করতে হিমশিম খেতে হয় ওই অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক কে। তাই তিনি একটি স্বাস্থ্য সাথী কার্ড করার পরিকল্পনা করেন। সেই মতো রায়না ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে গিয়ে তিনি অর্ণব এর সঙ্গে যোগাযোগ করে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড করার অনুরোধ করেন। অর্ণব তার কাছ থেকে ৫,০০০ টাকা ঘুষ নিয়ে স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করে দেওয়ার কথা বলেন। অবসরপ্রাপ্ত ওই শিক্ষক ঘুষ দিতে রাজি হয়ে যান। অর্ণবের দাবি মতো তিনি দু খেপে তাকে ৮,০০০ টাকা প্রথমে দেন কার্ড করানোর জন্য। পরে একটি ভুয়া ফোনের মারফত গৌর বাবু কে জানানো হয় যে নবান্নতে তার পেনশন বন্ধ করে দেওয়া হবে কারণ তিনি টাকা দিয়ে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পেনশন যদি বন্দ না করতে হয় তাহলে ২ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা ঘুষ দিতে হবে। অসহায় অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক গৌর চন্দ্র দাস কোন রাস্তা না পেয়ে ভয়ে বাধ্য হয়ে অর্নবের হাতে পুরো টাকাটাই তুলে দেন।

পুলিশ সূত্র থেকে জানা গেছে অর্ণবকে ধাপে ধাপে মোট ৪ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা দিয়েছেন। কিন্তু গৌড় বাবুর তার স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড এখনো হয়নি। গৌড় বাবু টাকা ফেরতের জন্য চাপ দিলে অর্ণব তাকে একটি স্ট্যাম্প পেপারে লিখিতভাবে টাকা ফেরত দেওয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু সময় মতন সেই আশ্বাস ভুল প্রমাণ করে অর্ণব। এরপর এই অভিযোগ দায়ের করেন গৌড় বাবু পুলিশের কাছে। পুলিশ স্ট্যাম্পে পেপারটিও বাজেয়াপ্ত করে অর্ণবকে গ্রেপ্তার করে। ধৃতকে ৪ দিন পুলিসি হেফাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন মুখ্য বিচার বিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেট রতন কুমার গুপ্তা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here