দোকানের বাইরে শুয়ে থাকা সেলুন মালিককে খুনের চেষ্টা অঙ্গাতপরিচয় স্টোনম্যানের

0
909

নিজস্ব সংবাদদাতা, দুর্গাপুরঃ- সারা রাজ্যে চলছে লকডাউন পরিস্থিতি। রাজ্য পুলিশ তথা দুর্গাপুর প্রশাসন তৎপরতার সাথে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় নিরন্তর প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছেন। দুর্গাপুর পুলিশের তৎপরতার জন্য লকডাউন চলাকালীন কোথাও তেমন কোন চুরি , ডাকাতি বা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেনি শিল্পাঞ্চল জুড়ে। কিন্তু গত রাত্রের এক ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন বিজোন এলাকার মানুষজন।

গতরাত্রে প্রায় রাত দেড়টা নাগাদ দোকানের বাইরে শুয়ে ছিলেন কর্পুরী ঠাকুর নামে বি-জোনের শরৎ চন্দ্র রোডে ও মহেশ কাপুর ওপর অবস্থিত তার নিজের সেলুনের সামনে। সারাদিন অত্যন্ত গরম থাকায় গতরাত্রে সে তার দোকানের বাইরেই মশারি টাঙ্গিয়ে মাটিতেই শুয়ে ছিলেন। রাত প্রায় ১;৩০ নাগাদ এক অজানা ব্যক্তি একটি বড় ইটের চাউর দিয়ে তার মাথার ওপর সজোরে আঘাত করে ঘুমন্ত অবস্থায়। ঘুমোনোর সময় ওই ব্যক্তি নিজের মাথার ওপরে হাত রেখে ঘুমোচ্ছিলেন তাই তার মাথাটি থেতলে যাইনি। কিন্তু সেলুন মালিক কর্পুরী ঠাকুরের মাথায় ১০টি সেলাই পরেছে। এলাকার মানুষজনরা দ্রুত তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে তার অবস্থা এখন স্থিতিশীল বলে জানা গেছে। এলাকা জুড়ে রয়েছে চাপা আতঙ্ক। যেখানে এই ঘটনাটি ঘটেছে ঠিক তার পাশেই একটি দোকানের সিসিটিভি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে ওই অঙ্গাতপরিচয় স্টোনম্যান / ব্যক্তির। দুর্গাপুরের বি-জোন থানার পুলিশ ইতিমধ্যে তদন্তে নেমেছেন।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ প্রায় প্রতিদিনই রাত্রের দিকে একটি চোরের দল এই এলাকায় ঘোরাফেরা করে। কিছুদিন আগে রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে থাকা বেশ কয়েকটি জেসিপি মেশিন থেকে তারা যন্ত্রাংশ চুরি করে নিয়ে গেছে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান এলাকাতে ঝোপঝাড় থাকায় রাতে পুলিশের টহলদারি গাড়ি দেখলেই হয়তো চোরেরা সেই ঝোপের ভেতরে আত্মগোপন করে থাকে, পুলিশের টহলদারি গাড়ি চলে গেলেই তারা আবার এলাকায় সক্রিয় হয়। বাসিন্দাদের অভিযোগ সম্ভবত সেলুন মালিক কর্পুরী ঠাকুর দোকানের বাইরে শুয়ে থাকার কারণে চোরেদের অসুবিধা হয়ে থাকতে পারে তাই তারা তাকে প্রাণে মেরে ফেলার চেষ্টা করেছিল। আবার অনেক বাসিন্দাদের মত এটা কোন স্টোনম্যান এর কাজ হতে পারে এলাকায় আতঙ্ক ছড়ানোর জন্য সে এই কাজ করেছে। পুলিশের অঙ্গাতপরিচয় দুস্কৃতির খোঁজে তদন্তে চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here