পুষ্পবৃষ্টি করবে সেনা হেলিকপ্টার সম্ভবত সকাল বেলাতেই দুর্গাপুরের একমাত্র কোভিড-১৯ হাসপাতালে ওপর

0
19161

এই বাংলায় ওয়েব ডেস্কঃ- সারা দেশ তথা রাজ্যে চলছে লকডাউন। মারণ রোগ করোনা ভাইরাসের দাপটে ইতিমধ্যেই মারা গিয়েছেন বহু মানুষ। সংক্রমণের সংখ্যাও লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে গোটা বিশ্বজুড়ে। ভারতবর্ষের বিভিন্ন জায়গাকে রেড জোন, অরেঞ্জ জোন ও গ্রীণ জোনে ভাগ করে রাখা হয়েছে।

পুলিশকর্মী, চিকিৎসক, স্বাস্থ্য কর্মী, সাফাই কর্মী ও যারা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে করোনা ভাইরাস নির্মূল করার যুদ্ধে লড়াই করছেন সেই সব যোদ্ধাদের শ্রদ্ধা জানাবে ভারতীয় সেনাবাহিনী। আজ সকাল বেলায় উত্তর ভারতের কাশ্মীর থেকে দক্ষিণ ভারতের তিরুবনন্তপুরম ও পূর্বে ভারতের ডিমাপুর থেকে পশ্চিম ভারতের রান অফ কাচ গুজরাট পর্যন্ত, ভারতীয় সেনাবাহিনীর যুদ্ধ বিমান শ্রদ্ধা জানাতে উড়ে যাবে ভারতবর্ষের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে।

দুর্গাপুর শিল্পাঞ্চলে একমাত্র কোভিড-১৯ হাসপাতাল, সনোকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল আশেপাশের পাঁচটি জেলার একমাত্র কোভিড-১৯ হাসপাতাল হিসেবে চিহ্নিত হয়ে আছে। করোনা সংক্রমণ কালে সনোকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের উল্লেখযোগ্য চিকিৎসায় ইতিমধ্যেই প্রায় ৫ জন রোগী সুস্থ হয়ে তাদের নিজেদের বাড়ি ফিরে গেছেন। গত পরশু দিনে একজনও রোগী ছিলেন না এই হাসপাতলে সবাইকেই ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল সুস্থ করে। কিন্তু করোনা সংক্রমনের জেরে শনিবার আবার বীরভূমের ময়ূরেশ্বর থেকে তিনজন রোগী এখানে ভর্তি হয়েছেন চিকিৎসার জন্য।

একটি সূত্র থেকে জানা গেছে যে শিল্পাঞ্চলের একমাত্র কোভিড-১৯ হাসপাতাল, সনোকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ওপর কাল সকাল ১০ টা থেকে সাড়ে ১১ টার মধ্যে সেনাবাহিনীর বিশেষ হেলিকপ্টার দ্বারা পুষ্প বৃষ্টি করা হতে পারে। ওই হাসপাতালের সমস্ত ডাক্তার, স্বাস্থ্য কর্মী, সাফাই কর্মী ও করোনা যুদ্ধে যারা নিরন্তর প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছেন তাদের সম্মানে এই পুষ্পবৃষ্টি বলে জানা গেছে। যদিও আবহাওয়া পরিস্থিতির ওপর সবকিছু নির্ভর করছে। যদি কাল আবহাওয়া পরিষ্কার থাকে তাহলে এই পুষ্প বৃষ্টির ঘটনাটি একটি বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করবে শিল্পাঞ্চলের বুকে। এখনো পর্যন্ত সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে এই বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি। তবে যা কিছু হবার সেটি কলকাতার ফোর্ট উইলিয়াম থেকেই হবে বলে জানা গেছে।

সমগ্র শিল্পাঞ্চলবাঁশি নিজেদেরকে গর্বিত মনে করবেন যে তারা এমন একটি শহরে বসবাস করেন যেখানে আশেপাশের পাঁচটি জেলার একমাত্র কোভিড-১৯ হাসপাতাল রয়েছে এবং উল্লেখযোগ্য চিকিৎসা দ্বারা এখনো পর্যন্ত ৫ জন রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরতে পেরেছেন। এখানকার চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী ও বিভিন্ন করোনা যোদ্ধাদের জন্য সমস্ত শিল্পাঞ্চলবাঁশির শুভকামনা রয়েছে। গোটা শিল্পাঞ্চলবাঁশি অপেক্ষা করে থাকবে কখন সেনাবাহিনীর সেই বিশেষ হেলিকপ্টার ওই হাসপাতালে মাথার ওপর উড়ে পুষ্পবৃষ্টি করবে সেই বিরল দৃশ্যটি ক্যামেরাবন্দি করার উদ্দেশ্যে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here