‘এই বাংলায়’ খবর পরিবেশনের কয়েক ঘন্টার মধ্যেই কড়া প্রতিক্রিয়া শিশির অধিকারীর।…………..”আমার ছেলে আর যাই করুক কোনও দিন ও বিজেপিতে যাবে না”-দাবি শিশির অধিকারীর

0
543

বিশেষ প্রতিনিধি, কাঁথিঃ- ” বিজেপি আসলে কোনও রাজনৈতিক দলই না। রাজ্যের জেলায় জেলায় কিছুই নেই ওদের। ভোটে কিছুই করতে পারবে না ওরা,” বলে গেরুয়া শিবিরকে যিনি তুচ্ছ করলেন, তাঁর ছেলেকে নিয়েই রাজ্য রাজনীতিতে এখন জোর জল্পনা যে তিনি হয় বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন, নয় তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে আলদা রাজনৈতিক দল করছেন।

“আমি আমার ছেলেকে জানি। কেউ কেউ ওকে এখান ওখান থেকে উস্কে দিচ্ছে বটে, তবে শুভেন্দু অধিকারী আর যাই করুক বিজেপিতে যাবে না,” বলে বুক ঠুকে শিশির অধিকারী দাবি করলেন, “আমাদের জেলায় ১৬ টি আসনের দু’একটা একটু কমজোরি হয়েছে বটে, তবে তা আমরা মেরামতি করে নেবই। ওসব বিজেপি-ফিজেপি এখানে পাত্তা পাবে না।”

বিজেপির সর্বভারতীয় নেতা, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বাঁকুড়া, মেদিনীপুরে আসছেন ৫ নভেম্বর। রাজ্য বিজেপি যুবমোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খাঁ শনিবার সর্বভারতীয় সহ সভাপতি মুকুল রায়কে সাথে নিয়ে বাঁকুড়ায় একটি মন্দিরে পুজোই সেরে ফেললেন এই আর্জিতে যে শুভেন্দু যেন বিজেপিতে যোগ দেন। সৌমিত্র বলেন, “প্রার্থণা করলাম শুভেন্দু যেন তাড়াতাড়ি বিজেপিতে চলে আসেন।”যে শুভেন্দুকে নিয়ে এত আকচা আকচি, শুক্রবার তিনি বলেন, “আমি প্যারাশুটে নামিনি, লিফ্টেও উঠিনি।” শনিবার তিনি আলাদা একটি অনুষ্ঠানে বলেন,” সরকারে থেকে আমরা যে কাজ করেছি, তা সবাই জানেন।” তবে সরকারি অনুষ্ঠানে বিধায়ক, ভাই দিব্যেন্দুকে পাশে বসিয়ে একটি বারও মুখ্যমন্ত্রীর নাম মুখে আনেননি। জল্পনা তাই জিইয়েই থাকে। এরপরই শুভেন্দুর বাবা, সাংসদ শিশির অধিকারী সাফ জানিয়েছেন শুভেন্দুর বিজেপি গমনের সম্ভাবনা কার্যত বাজারি জল্পনা মাত্র। তবে, শুভেন্দুকে ঘিরে বিজেপির এই উৎসাহিত কি তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে তাঁর দূরত্ব দিন দিন বাড়িয়ে দিচ্ছে না? শুভেন্দুর ঘনিষ্ঠ মহলের দাবি “দু’একজনের সাথে তো ওনার মন কষাকষি আছেই। তার ওপর আবর দু’একজন চামচা-বেলচা আলটপকা মন্তব্য করেই যাচ্ছেন। আসলে মমতা ব্যানার্জীর সাথে শুভেন্দুর দূরত্ব বাড়িয়ে ফায়দা তুলতে সক্রিয় দুজন মন্ত্রী আর তাঁদের শাগরেদ। বিজেপির হয়ে আসল কাজ তো ওরাই করছেন।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here