আদালতের রায়ে “তাড়িপার” বিষ্ণুপুরের বিজেপি প্রার্থী সৌমিত্র খাঁ-র প্রচারে আদিশক্তি রূপে স্ত্রী স্কুল শিক্ষিকা সুজাতা খাঁ

0
4403

এই বাংলায়, নিউজ ডেস্কঃ কলকাতা হাইকোর্টের কড়া নির্দেশে ৬ সপ্তাহ জেলায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে বিষ্ণুপুরের এবারের বিজেপি প্রার্থী সৌমিত্র খাঁর। ফলে লোকসভা ভোট দোরগড়ায় থাকলেও ভোটপ্রচারে করতে পারছেন না তিনি। এরকম পরিস্থিতিতে এবার স্বামীর হয়ে বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রে প্রচার শুরু করলেন বিষ্ণুপুরের বিজেপি প্রার্থী সৌমিত্র খাঁর স্ত্রী সুজাতা খাঁ। সোমবার শ্বশুর-শুাশুড়িকে সঙ্গে নিয়ে সুজাতা খাঁ স্বামীর হয়ে প্রচারে রীতিমতো নজর কাড়লেন। মিছিলে পা মেলান প্রায় তিন হাজার বিজেপি কর্মী। এছাড়াও সৌমিত্র খাঁ-র সমর্থনে মিছিলে উপস্থিত ছিলেন বড়জোড়া মণ্ডল সভাপতি শ্যামপদ রায়, বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলার সাধারন সম্পাদক অমরনাথ বাবু, বিষ্ণুপুর লোকসভার কো-কনভেনার সুজিত অগস্তি সহ একাধিক নেতৃত্ব। এদিন স্বামীর বিরুদ্ধে চলা মামলা নিয়ে সৌমিত্র খাঁর স্ত্রী স্কুল শিক্ষকা সুজাতা খাঁ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, যতদিন তৃণমূল কংগ্রেসের সমর্থক ছিলেন সৌমিত্র খাঁ ততদিন পুলিশ তার বিরুদ্ধে কোন দুর্নীতি খুঁজে পায়নি, কিন্তু এখন বিজেপিতে যোগদান করায় পুলিশ অপরাধমুলক কাজের অভিযোগে আদালতে মামলা করছে। সোমবার একদিকে যখন সৌমিত্র খাঁ-র হয়ে প্রচারে নেমেছেন তাঁর পরিবারের সদস্যরা তখন দুর্গাপুরে এসে শাসক দল তথা পুলিশ প্রশাসনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিলেন বিষ্ণুপুরের বিজেপি প্রার্থী সৌমিত্র খাঁ। তাঁর কথায় পুলিশ প্রশাসন বিষ্ণুপুরে প্রচারের জন্য ভয়ে অনুমতি দিচ্ছে না। কিন্তু বিষ্ণুপুরে ঢুকতে বাধা দিয়ে তাঁর ভোট প্রচারকে আটকানো যাবে না বলে সাফ জানালেন সৌমিত্র খাঁ। তিনি এও জানান, দশ হাজার যুবক বিষ্ণুপুর কেন্দ্রে তাঁর হয়ে প্রচারে নেমেছেন। তাই পুলিশ প্রশাসন ভয় পেয়ে বিজেপির প্রচারকে আটকানোর চেষ্টা করছে। উদাহরন হিসেবে তিনি জানান, রবিবার খন্ডঘোষেও বিজেপির মিছিল আটকানোর চেষ্টা হয়েছে। সৌমিত্র খাঁ-র বক্তব্য, তিনি রাস্তা দিয়ে হেঁটে গেলে শয়ে শয়ে মানুষ যদি তাঁর সমর্থনে এগিয়ে আসে তাহলে সেখানে তাঁর করার কিছু নেই। মানুষ তাকে ভালোবাসে, তাই সকলে তাঁর সঙ্গে আছেন। যারা পাঁচ বছর কাজ করেছেন তাদের ভোট আদায়ের জন্য বাড়ি বাড়ি ভোট ভিক্ষা করতে যেতে হয়না বলে মত বিজেপি প্রার্থীর। একদিকে যখন বাঁকুড়া ও বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপির ভিত শক্ত করতে রাস্তায় নেমেছেন বিজেপির সাংগাঠনিক প্রতিনিধিরা এবং বিজেপি সমর্থকেরা তখন বিজপির বিরুদ্ধে এবার তৃণমূলের দেওয়াল লিখনে গোবর লেপে দেওয়ার অভিযোগ তুলল তৃণমূল কংগ্রেস। তারা জানান, গোটা বাঁকুড়া জেলা জুড়ে বিজেপির গুন্ডাবাহিনী বিভিন্ন এলাকায় তৃণমূলের দেওয়াল লিখন, ফ্লেক্স, ব্যানার ও পতাকা নষ্ট করার কাজে লিপ্ত হয়েছে। এতে তৃণমূলের জয়যাত্রাকে আটকানো যাবে না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আশীর্বাদ ধন্য সব তৃণমূল প্রার্থী বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে এবং বিরোধীদের উচিত জবাব দেবে জনতা। উক্ত ঘটনাটি ঘটে বাঁকুড়ার সদর থানার অন্তর্গত কেঞ্জাকুড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের মোলবনা় গ্রামে। যদিও বিজেপির তরফে এই অভিযোগ উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। তাদের বক্তব্য, তৃণমূল কংগ্রেস বাঁকুড়া জেলায় বিজেপির শক্তিবৃদ্ধিতে ভয় পেয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে এই ধরণের মিথ্যা অভিযোগ তুলছে।