সৌমিত্র খাঁ তো বালি আর বৌ নিয়ে ব্যস্ত আর হরিদাস ব্যানার্জীর বৌ ব্যস্ত সোনা পাচারে

0
1474

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ একেই বোধহয় বলে “ইটের বদলে পাটকেল”। গত সোমবার বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী শ্যামল সাঁতরার সমর্থনে বিষ্ণুপুরে ভোট প্রচারে এসে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নাম না করে সৌমিত্র খাঁ-কে কটাক্ষ করে বলেছিলেন, “সৌমিত্র খাঁ বালি আর বৌ নিয়ে ব্যস্ত”। ৪৮ ঘণ্টা পেরোতে না পেরোতেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে সেই মন্তব্য সুদে-আসলে ফেরত দিলেন বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী সৌমিত্র খাঁ-র স্ত্রী সুজাতা খাঁ। বুধবার ভোটপ্রচারের আগে কোতুলপুরের রক্ষাকালী মন্দিরে পুজো দিয়ে বেরিয়ে সাংবাদিকদের সামনে তিনি জানান, “সৌমিত্র খাঁ-র বৌ ভোট প্রচারে ব্যস্ত আর হরিদাস ব্যানার্জীর বৌ সোনা পাচারে ব্যস্ত”। এখানেই থেমে না থেকে তিনি জানান, প্রকৃত শিক্ষা না থাকার কারণেই একজন সাংসদ হয়ে প্রকাশ্যে কোনও প্রার্থীকে এভাবে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করতে পেরছেন অভিষেক ব্যানার্জী। মাত্র কয়েকদিন হল রাজনীতির ময়দানে পা রেখেছেন স্কুল শিক্ষিকা সুজাতা খাঁ। এরমধ্যে কেমন সাড়া পাচ্ছেন তিনি এবিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, দশ দিন নয়, মনে হচ্ছে দশ বছর হয়ে গেল রাজনীতির ময়দানে রয়েছেন। তাঁর প্রচারে মানুষ অভূতপূর্বভাবে সাড়া দিচ্ছেন বলে দাবী সুজাতা খাঁ। ইতিমধ্যেই কলকাতা হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সৌমিত্র খাঁ বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রে প্রবেশাধিকারের দাবীতে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানিয়েছেন। কিন্তু এখনও পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্টের তরফে তাঁর বিষ্ণুপুর কেন্দ্রে প্রবেশের ওপরে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার বিষয়ে কোনোরকম সবুজ সংকেত মেলে নি। সূত্রের খবর অনুযায়ী, এহেন পরিস্থিতিতে শেষ মুহূর্তে সুজাতা খাঁ-ই বিজেপির হয়ে বিষ্ণুপুর কেন্দ্রে মনোনয়ন পেশ করতে পারেন। আর তাই যদি হয় তাহলে ভোটের আগে ফের চমকের অপেক্ষায় বিজেপি। একদিকে লোকসভা ভোটের প্রথম দফার ভোট প্রায় শেষের মুখে তখন দক্ষিণ দিনাজপুরে বালুরঘাট কেন্দ্রে দলীয় কোন্দল মেটাতে খোদ ময়দানে নামলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগামী ২৩শে এপ্রিল তৃতীয় দফায় ৬ নং বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রে নির্বাচন। কিন্তু এই কেন্দ্রের গোষ্ঠী কন্দলই এখন কপালে ভাঁজ ফেলেছে তৃণমূল সুপ্রিমোর। কারণ বালুরঘাট কেন্দ্রের এইবার নির্বাচনে দাঁড়িয়েছেন নাট্য কর্মী অর্পিতা ঘোষ। আর তাঁকে কেন্দ্র করেই বালুরঘাট কেন্দ্রে তৃণমূল কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে ক্ষোভের আগুন। কারণ এই কেন্দ্রের তৃণমূল কর্মী-সমর্থকদের পছন্দের তালিকায় ছিলেন এলাকার ভূমিপুত্র জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র কিন্তু তাঁর জায়গায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্নেহধন্য অর্পিতা ঘোষকে মুখ্যমন্ত্রী নিজে প্রার্থী নির্বাচন করায় তৃণমূলের অন্দরে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছায় যে খোদ মুখ্যমন্ত্রীকে ড্যামেজ কন্ট্রোলের জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও পোষ্ট করতে হয়। যেখানে তিনি অর্পিতা ঘোষের হয়ে ভোট দেওয়ার আবেদন জানান। তৃণমূল সুপ্রিমোর বক্তব্য, বালুরঘাট শহরকে নিজের থেকে বেশি ভালোবাসেন অর্পিতা ঘোষ। সিঙ্গুর, নন্দীগ্রাম আন্দোলনের সময়ও অর্পিতা ঘোষ সক্রিয়ভাবে আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেছিলেন। এরপর বালুরঘাটে তৃণমূল কর্মী-সমর্থকদের অর্পিতা ঘোষের প্রচারে দেখা গেলেও মুখ্যমন্ত্রীর ৩৬ সেকেন্ডের সেই ভিডিও বার্তায় চিড়ে কতটা ভিজলো তার উত্তর দেবে আগামী ২৩শে এপ্রিলের ব্যালট বক্স।