বিপদ কেন আসে? জেনে নিন পরমহংসদেবের অন্যতম পার্ষদ শ্রীময়ের কথায়

0
552

সংগীতা চ্যাটার্জী(চৌধুরী),বহরমপুরঃ- ঠাকুরের জীবনী রচয়িতা ও শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণের অন্যতম পার্ষদ মহেন্দ্রনাথ গুপ্তকে শ্রীম বলা হয়। ঠাকুরের সঙ্গে তাঁর সাক্ষাৎ এর ফলে তাঁর জীবনের আধ্যাত্মিক চেতনার দ্বার খুলে গিয়েছিল। পরবর্তীকালে শ্রীময়ের ‘শ্রীম দর্শন’ নামে একটি বই প্রকাশিত হয়। যেখানে তাঁর জীবন দর্শনের কথা, তাঁর মুখের বিভিন্ন আধ্যাত্মিক কথা উল্লেখিত আছে। সেখানেই এক জায়গায় শ্রীম বলেছেন, মনুষ্য জন্ম কেন হয়।

মানুষজন্ম কেন হয় এর উত্তরে মহেন্দ্রনাথ গুপ্ত বলেন, “ সংস্কারের জন্য, কর্মফল ভোগের জন্য । পাপ পুণ্য সমান হলে মানুষ হয় । আবার এ জন্মেই মুক্তি হয়, অন্য শরীরে তা হয় না । এ শরীরে পূর্বে কর্মফলের ভোগ হয়, আবার নূতন কর্ম অর্জনও হয় । অন্য শরীরে শুধু কর্মফল ভোগ হয় মাত্র, অর্জন হয় না। মানুষদের মধ্যেও কেউ আসে ঈশ্বরের লীলার সহায়তার জন্য । সে উপলব্ধি হয় যখন বুড়ি ছোঁয়া হয়, ঈশ্বর-দর্শন হয় । যারা বুঁড়ি ছুঁয়েছে তাঁদের মনে হিংসা-দ্বেষ, জয়-পরাজয়, লাভালাভ , এ সব দ্বন্দ্ব থাকে না । সমদর্শী হয়ে যায়। তখন নিজেকে যন্ত্র ঈশ্বরকে যন্ত্রী দেখতে পান। মানুষ যখন তাঁকে ভুলে যায় তখন কখনও তিনি তাকে খুব বিপদে ফেলে দেন এবং তাঁর দিকে টেনে নেন । বাইরে দেখতে বিপদ কিন্তু শেষে ভালো।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here