লোকনাথ বাবার তিনটি বাণী যা জীবনকে বদলে দেবে

0
1134

বহরমপুর থেকে সঙ্গীতা চৌধুরীঃ- লোকনাথ বাবাকে শিবের অবতার বলা হয়। তিনি নিজেও ছিলেন শিব ভক্ত।লোকনাথ বাবার কতগুলি অমর বাণী আজকে আপনাদের সামনে তুলে ধরছি। এই বাণী আমাদের ভবিষ্যৎ জীবনের পথ প্রদর্শক হবে। আলোর দিশারী ছিলেন তিনি। তিনি আমাদের পথ দেখিয়েছেন কীভাবে জীবনকে অতিবাহিত করা উচিত।
১।”ঈশ্বরই একমাত্র সদগুরু, আমার চরণ ধরিসনা; আচরণ ধর।”-অর্থাৎ লোকনাথ বাবার জীবন ছিলো ধীর ,স্থির, শান্ত ত্যাগী। তার আচরণের সবথেকে বড় বৈশিষ্ট্য ছিল ভালোবাসা। আমরা মানুষরা যদি তার করা এই গুণাবলী গুলো মেনে নিয়ে জীবন যাপন করতে পারি তাহলে আমরা অবশ্যই সুখী হব।
২।”গুরু কে? ঠেকা। যে যে স্থানে ঠেকে,সে সেই স্থানেই শিক্ষা পায়। যার আদেশ তুমি অনুসরণ কর তিনিই তোমার গুরু।”- ঠেকা অর্থাৎ আঘাত থেকেই মানুষ শেখে। মানুষের জীবনে আঘাতই সবথেকে বড় গুরু। আঘাত ই মানুষকে নিজেকে চিনতে শেখায়। আর আঘাতের দ্বারা মানুষ অপরকেও চিনতে পারে।
৩।”তুমি যা অনুভব করতে পারোনি, তা কাউকে বলো না। “অনেক মানুষই আছেন যারা বড় বড় লেকচার দেন। কিন্তু মানুষের সেই কথাই বলা উচিত যা তিনি নিজের জীবন দিয়ে অনুভব করেছেন। যা তিনি নিজের জীবন দিয়ে অনুভব করেননি তা বলার অর্থ হলো মিথ্যে বলা। আর যা মানুষ নিজের জীবন দিয়ে অনুভব করে তাহলে সত্য। লোকনাথ বাবার সব সময় সত্য কথা বলার পক্ষপাতী ছিলেন। তিনি মানুষকে সত্য ও সৎ জীবনযাপন এর কথা বলেছেন। লোকনাথ বাবার সর্বশেষ একটি বাণী আমরা প্রত্যেকেই জানি। তা হলো-“রণে বনে জলে জঙ্গলে যখনই বিপদে পড়িবে আমাকে স্মরণ করিও আমি রক্ষা করিব।”এই বাণীর দ্বারায় তিনি জগৎখ্যাত হয়েছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here