হবে না এবারের লোকসভা ভোট, “বিজেপির চরিত্র” “চালচোর তৃণমূল” বলে একে অপরকে কটাক্ষ বাঁকুড়ায়

0
395

সংবাদদাতা, বাঁকুড়াঃ- ২০১৯এ লোকসভা নির্বাচনের নিরিখে ভোট হচ্ছে না আগামী বিধানসভা নির্বাচনে। নিছকই আবেগতাড়িত হয়ে ২০১৯ এ মানুষ ভোট দিয়ে জয়ী করেছিল বাঁকুড়ার দুই সাংসদকে। কিন্তু লাভের মুখ দেখেনি বাঁকুড়াবাসী। হয়নি বড়জোড়া বিধানসভার সংসদ উন্নয়ন-ও। অতপর সেই আবেগ কে ধুয়ে মুছে সাফ করে সত্যিকারের বাস্তব দেখতে শিখলেন বাঁকুড়াবাসী। বাঁকুড়া উন্নয়নের কান্ডারী হিসাবে এবারে মানুষ বাছছেন তৃণমূলকে। বড়জোড়া বিধানসভায় বিপুল সংখ্যক জয়ের ব্যবধানে ক্ষমতায় আসছেন তারাই। রাজ্য তৃণমূল নেতৃত্বের নির্দেশে বুধবার অমরকাননে তৃণমূলের এক দলীয় কার্যালয়ে সাংবাদিক বৈঠকে বসে বিজেপি কে ঠিক এমনটাই বার্তা দিলেন বাঁকুড়া জেলা পরিষদের কোমেন্টর তথা বড়জোড়া বিধানসভার প্রাক্তন বিধায়ক আশুতোষ মুখার্জি। বিরুদ্ধ দলের কারোর নাম না করে বেশ গা বাঁচিয়েই সাংসদ সৌমিত্র খাঁ কে তোপ দিলেন তিনি। উত্তরে বিজেপির পালটা জবাব,- সারারাজ্যে বিজেপি জয়ে আধিপত্য কায়েম থাকবে। আসল চরিত্র ফাঁস হবার পর মানুষ ভোট দেবে তাদের আবেগের বিরুদ্ধে, ভোট দেবে “চালচোর তৃণমূল” এর বিরুদ্ধে। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে মানুষের উন্নয়ন থাকছে বিজেপির-ই হাতে। -এমনটাই দাবি বিজেপি নেতা সুজিত অগস্তির।
তবে এইসব রাজনৈতিক তরজা থেমে নেই করোনা, আমফান পরিস্থিতিতেও। বাঁকুড়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি শুভাশিস বটব্যাল এক সাংবাদিক বৈঠকে দাবি করেছেন রাজ্য সরকার তথা জেলা প্রশাসন এমনকি ব্লক প্রশাসন-ও পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহন করেছিল বলে বড়জোড়া এলাকার কেউই সেই সরকারি সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়নি। দিনরাত এক করে মানুষের পাশে থেকেছে শুধু-ই তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী ও প্রশাসন। অন্যদিকে জেলা সভাপতির এই মন্তব্যেও কটাক্ষ চালিয়ে গেছেন বিধায়ক সুজিত চক্রবর্তী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here