অর্কেষ্ট্রা দেখানোর নাম করে আদিবাসী কিশোরীকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার চার

0
492

সংবাদদাতা, বাঁকুড়া:

ঘটনা কতটা মারাত্মক হতে পারে এই ঘটনা তা প্রমাণ করছে। এক আদিবাসী কিশোরীর সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনা আরো একবার সমাজের বসবাসকারী মানুষের মানবিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিল। এবার গ্রামে অর্কেষ্ট্রা দেখানোর নাম করে এক আদিবাসী কিশোরীকে ডেকে এনে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠলো সাত যুবকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি বাঁকুড়ার ছাতনা থানা এলাকার তুলসা গ্রামের। নির্যাতিতার পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ চারজনকে গ্রেফতার করেছে।

খবরে প্রকাশ, পুরুলিয়ার নিতুড়িয়া থানা এলাকার ভালডুবি গ্রামের এক আদিবাসী কিশোরীর সঙ্গে বাঁকুড়ার ছাতনার তুলসা গ্রামের এক যুবকের পরিচিতি ছিল। মঙ্গলবার ঐ যুবকের গ্রামে অর্কেষ্ট্রা দেখার নিমন্ত্রন জানিয়ে ঐ কিশোরীকে নিয়ে আসে। পরে ঐ কিশোরীর পূর্ব পরিচিত যুবক সহ সাত জন তাকে স্থানীয় এক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে নির্ম্মীয়মান বাড়িতে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করে বলে অভিযোগ।

পরে স্থানীয় সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নির্যাতিতা কিশোরীকে উদ্ধার করে ছাতনা সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে নির্যাতিতার পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তুলসা গ্রাম থেকেই বিজয় সরেন, ছোটোলাল সরেন, ভূপেন্দ্র সরেন ও সনৎ সরেনকে গ্রেফতার করে। ধৃত চার জনকে পুলিশের পক্ষ থেকে বাঁকুড়া জেলা আদালতে তোলা হচ্ছে। বাকি তিন অভিযুক্তের খোঁজে পুলিশ তল্লাশি চালাচ্ছে। একই সঙ্গে ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

পুলিশ তদন্ত করবে হয়তো নির্যাতিতার পরিবার সঠিক বিচার পাবে। কিন্তু দিনের পর দিন মানুষের মন যেভাবে বিষিয়ে যাচ্ছে তার কি পরিবর্তন করা আদৌ সম্ভব। আগামীদিনে সমাজ ব্যবস্থা কোন দিকে এগোচ্ছে, ভাবলেই অবাক হয়ে যেতে হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here