কাঁকসায় তৃণমূলের নব নির্বাচিত ব্লক সভাপতিকে লক্ষ্য করে তেড়ে গেল কর্মীরা, আটকালেন স্বয়ং বিধায়ক

0
1394

সংবাদদাতা,কাঁকসাঃ- কাঁকসায় তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দ্বের জেরে শুরু হওয়ার আগেই বন্ধ হয়ে গেল পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি। কর্মীদের ঠেকাতে ময়দানে নামতে হল খোদ বিধায়ক ও তার দেহ রক্ষক্ষ্য। রবিবার বিকালে কেন্দ্র সরকারের অনৈতিক জনবিরোধী নীতি ও বঞ্চনার প্রতিবাদে তৃণমূলের একটি মিছিল হওয়ার কথা ছিল কাঁকসার দানবাবা থেকে পানাগড় বাজারের চৌমাথা পর্যন্ত। গলসির বিধায়ক অলোক কুমার মাঝির নেতৃত্বে মিছিল হওয়ার কথা ছিল।মিছিলে প্রথম সারিতে থাকার কথা ছিল গলসির বিধায়ক অলোক কুমার মাঝি,কাঁকসা ব্লকের তৃণমূলের ব্লক সভাপতি দেবদাস বক্সী সহ ব্লকের অন্যান্য নেতাদের।কিন্তু মিছিল শুরু হবার আগেই মিছিলে কাঁকসা ব্লক সভাপতি দেবদাস বক্সী যোগদান করতে আসলে নিচু তলার কর্মীরা বিক্ষোভ দেখতে শুরু করে। বিক্ষোভ এতটাই চরম আকার নেয় যে ব্লক সভাপতি দেবদাস বক্সীকে মারতে তেড়ে যান কর্মী সমর্থকরা। ছুটে গিয়ে ক্ষুব্ধ কর্মী সমর্থকদের আটকান স্বয়ং বিধায়ক এবং বিধায়কের রক্ষী। যদিও গন্ডগোল হওয়ার খবর আগে থেকেই ছিলো পুলিশের কাছে। সেই মত শাসক দলের মিছিলের জন্য প্রচুর পরিমানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিলো। কিন্তু ক্ষুব্ধ তৃণমূল কর্মীদের কাছে পুলিশের ভূমিকা ছিলো ঠুঁটো জগন্নাথের মত। তাই বাধ্য হয়ে ময়দানে নামতে হয় স্বয়ং বিধায়ককে। মিছিল শুরুর আগেই দীর্ঘক্ষণ গন্ডগোলের জেরে অবশেষে মিছল ছেড়ে বেরিয়ে যান বিধায়ক সহ কয়েকশো কর্মী সমর্থক।

কাঁকসা পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য কাঞ্চন লায়েক বলেন তারা ব্লক সভাপতিকে মেনে নিলেও নিচুতলার কর্মীরা মেনে নিচ্ছেন না। যদিও কোনোরকম দ্বন্দ্বের কথা স্বীকার করেননি বিধায়ক অলোক কুমার মাঝি। উল্টে তিনি কর্মীদের ক্ষোভের কথা উড়িয়ে দিয়ে বলেন ‘সবাই একসাথে আছি, ব্লক সভাপতিকে সঙ্গে নিয়েই মিছিলে হাঁটছি।’ অন্যদিকে যাকে নিয়ে এত গণ্ডগোল সেই সদ্য নির্বাচিত তৃণমূলের ব্লক সভাপতি দেবদাস বক্সী বলেন ‘তৃণমূলের জন্মলগ্ন থেকেই দলে রয়েছি, কেন কর্মী সমর্থকরা তাঁকে মেনে নিতে পারছেন না তা তাঁর জানা নেই।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here