আসানসোলে মা ও ভাইকে নৃশংসভাবে খুন করে থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করল যুবক

0
350

সন্তোষ মণ্ডল, আসানসোলঃ- বর্ধমানের হটুদেওয়ানের পর এবার আসানসোলের হীরাপুর। ফের মাকে খুনের অভিযোগ উঠল ছেলের বিরুদ্ধে। তবে এবার শুধু মাকে খুন করে ক্ষান্ত থাকেনি আসানসোলের রেলপাড় এলাকার বাসিন্দা মহম্মদ আলম। মায়ের পাশাপাশি ভাইকেও খুন করে সে। জোড়া খুন করে নিজেই বাইক চালিয়ে হীরাপুর থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করে আলম। কী কারণে এই খুন তা স্পষ্ট না হলেও প্রাথমিক অনুমান সম্পত্তি সংক্রান্ত বিবাদের জেরেই মা এবং ভাইকে কুপিয়ে খুন করে আলম।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে হীরাপুর থানার ইসমাইল আজাদ নগর এলাকায় স্ত্রী পরিবার নিয়ে থাকতেন নিহত আফতাব আলম। পরিবারে থাকতেন আফতাবের স্ত্রী, এক বোন ও মা আখতারি খাতুনও। বৃহস্পতিবার বিকেলে আসানসোলের রেলপাড় এলাকার বাসিন্দা আফতাবের মেজ দাদা মহম্মদ আলম তার বাড়িতে আসে। তার সঙ্গে ছিল ফলমূল ভর্তি একটি ব্যাগ। আর তার মধ্যেই লোকানো ছিল ধারাল অস্ত্র। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন ভাইয়ের বাড়িতে ঢুকেই আফতাবের স্ত্রী এবং নিজের বোনকে বেঁধে রাখে আলম। সেই সময় বাড়িতে তার মা ও ভাই কেউই ছিল না। তাদের ফোন করে ডাকে আলম। প্রথমে মা আখতারি বাড়ি পৌঁছলে তার উপর ধারাল অস্ত্র নিয়ে চড়াও হয় ছেলে। এরপর বাড়ির ভিতরে থাকা একটি চৌবাচ্চায় চুবিয়ে মাকে খুন করে সে। ওই ঘটনার কিছু ক্ষণের মধ্যেই বাড়ি পৌঁছয় আফতাবও। তাকেও ধরাল অস্ত্র দিয়ে খুন করে আলম। এরপর নিজেই হীরাপুর থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করে সে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের ডিসি অভিষেক মোদী জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তথ্যপ্রমাণ সংগ্রহ করেছে। কী কারণে খুন তা তদন্ত করে দেখে হচ্ছে।

প্রতিবেশীদের মতে, জমিজমা ও সম্পত্তি সংক্রান্ত বিবাদেরজেরেই মা ও ভাইকে খুন করেছে মহম্মদ আলম । যদিও আলম এবং নিহত আফতাবের বড় দাদা সারওয়ার আলম জানিয়েছেন, তারা ভাইয়েরা সম্পত্তি ভাগ করে নিয়েছেন আগেই। তাই খুনের কারণ নিয়ে ধন্দে তিনিও। তবে ভাইয়ের কড়া শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here