উত্তমা আশ্রম থেকে গরীব-দুঃস্থদের ত্রাণ সামগ্রী বিলি

0
1327

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাঁকুড়াঃ- সারাদেশে চলছে লকডাউন। মারণ রোগ করোনা ভাইরাস এর দাপটে গৃহবন্দী মানুষজন। রাজ্য সরকার, পুলিশ প্রশাসন, সমাজসেবী সংগঠন, রাজনৈতিক দল ও বিভিন্ন সংস্থার পক্ষ থেকে এই লকডাউন এরমধ্যে অনাহারে দরিদ্রতায় কষ্ট পাওয়া মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য ইতিমধ্যেই চাল বিতরণ করা শুরু হয়ে গিয়েছে পুরো রাজ্য তথা দেশজুড়ে। বেশ কয়েকটি ধর্মীয় সংগঠন ইতিমধ্যেই বহু গরিব দুস্থ মানুষকে ত্রাণসামগ্রী ও খাবার দিয়ে সাহায্য করে চলেছেন।

কয়েকদিন আগেই ভারতবর্ষের একটি রাজ্যে গেরুয়া বসন ধারী সাধুদের ওপর নির্মম অত্যাচারের ছবি সারা পৃথিবী জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছিল। সহজ, সরল, সর্বত্যাগী এই সন্ন্যাসীদের কে যেভাবে অত্যাচার করা হয়েছিল তাতে গোটা দেশ ক্ষোবে ফেটে পড়ে। কিন্তু এতকিছুর পরেও এই গেরুয়া বসন ধারী, সর্বত্যাগী মানুষেরা আজও নিরন্তর দুঃস্থ মানুষদের দুঃখ-কষ্টে পাশে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার নিয়ে নিরন্তর তাদের সুস্থ করে তোলা তথা তাদেরকে ত্রাণ সামগ্রী দিয়ে সাহায্য করার নিরন্তর প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছেন।

এমনই এক ঘটনার সাক্ষী থাকল বাঁকুড়াবাসী আজ। বাঁকুড়া জেলার গঙ্গাজলঘাটি থানা এলাকার কোড় মৌজায় অবস্থিতর ‘মা পার্বতীর মন্দির’। সুদৃশ্য এই পাহাড়ের ওপরে মাতৃমন্দির এ মন কারে আট থেকে আশি সবারই। কলিকাতার ডুমুরদহ উত্তমা আশ্রম এর শাখা হিসেবে এখানে একটি আশ্রম পরিচালিত হয়। যার পোশাকি নাম তপবন পাহাড় আশ্রম। এখানে স্থায়ীভাবে বসবাসকারী সন্ন্যাসীরা আজ আশেপাশের প্রায় ত্রিশটি গ্রাম থেকে দুস্থ গরিব মানুষদের নির্বাচিত করে সোশ্যাল ডিসটেন্স সিং এর নিয়ম মেনে তাদেরকে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের সাথে সাথে চাল, ডাল, আলু ও আরো অনেক সামগ্রী দান করেন।

মূলত এই আশ্রমটি দানে পরিচালিত হয়। তবুও সেই দান থেকেই তারা সামান্য কিছু অর্থ আলাদা করে এই এলাকার গরীব দুঃস্থ মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার নিয়ে আজকে এই ত্রাণসামগ্রী দান করার অনুষ্ঠানটি করলেন। তপবন পাহাড় আশ্রমের আবাসিক সন্ন্যাসী হরি মহারাজ, ফটিক মহারাজ, বাপি মহারাজ ও বরিষ্ঠ আবাসিক সন্ন্যাসী সাধন মহারাজের নেতৃত্বে ও কাপিস্টা গ্রাম সংলগ্ন এলাকার বেশ কিছু মানুষজনের সহায়তায় আজ এই অনুষ্ঠানটি সার্বিক ভাবে সাফল্যের সাথে অনুষ্ঠিত হলো। ত্রাণ নিতে আসা এক বরিষ্ঠ মহিলা নাগরিক মায়া বাগতি জানালেন যখনই কোন দুঃখ কষ্টের মধ্যে তারা পড়েন তখন পাহাড়ের মহারাজরা তাদেরকে যথাসাধ্য সাহায্য করেন। আজও তারা আমাদেরকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে এসে এই ত্রাণসামগ্রী হাতে তুলে দিলেন। তারা সত্যিই ভগবানের সেবা করছেন। এই সাধু-সন্ন্যাসীদের মঙ্গল কামনা করি।

উত্তমা আশ্রম এর পক্ষ থেকে হরি মহারাজ জানান আমাদের সীমিত সামর্থ্য। পুরোটাই দানে চলে আমাদের এই আশ্রম। তাই দানের টাকা থেকেই দান ফিরিয়ে দিলাম মানুষের এই দুঃখের সময়ে। আমাদের গুরু মহারাজ শ্রী শ্রী অভয়ানন্দ ব্রহ্মচারী গুরু মহারাজের আদেশে আমরা এই কাজ সাফল্যের সাথে করতে পেরে অত্যন্ত আনন্দিত ও সন্তুষ্ট। আগামী দিনে আমরা আবারও এইরকম প্রচেষ্টা চালাবো বলে জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here