বাংলা নববর্ষে রাজ্যজুড়ে ভোট প্রচারের মহোৎসব

0
814

নিউজ ডেস্ক, এই বাংলায়ঃ ১৪২৫ পেরিয়ে ১৪২৬ সন। দেখতে দেখতে আরও এক বছরের শেষ ও নতুন বছরের শুরু। আর নতুন বছরের শুরুটা ভালো করতে সোমবার সকাল থেকেই ভোট প্রচারে এলাকায় এলাকায় দাপিয়ে বেড়ালেন শাসক ও বিরোধী দলের প্রার্থীরা। যেমন, সোমবার নতুন বছরের সকালে
সাধারণ মানুষের ব্যাপক সাড়া পাওয়ার পর ভোটার প্রচারে কোনোরকম খামতি রাখতে চান না পুরুলিয়া লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো| এদিন সকাল থেকেই গ্রীস্মের প্রখর দাবদাহকে উপেক্ষা করেই ভোটার প্রচারে নাম্লেন তি নি। প্রবীন ব্যক্তিদের আশীর্বাদ নিয়ে ভোট প্রচারে জনসংযোগ বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে জোর কদমে প্রচারও সারলেন জেলার প্রতিটি ব্লক এলাকায়| শুধু তাই নয়, জেলার বিভিন্ন প্রান্তে প্রচার ও মিছিলের পাশাপাশি নাচ-গানের মাধ্যমে কৰ্মী সমর্থকদের সঙ্গে প্রচারেও অংশগ্রহণ করেন তিনি| প্রার্থীর সঙ্গে এদিন প্রচারে উপস্থিত ছিলেন পুরুলিয়ার বিজেপি জেলা সম্পাদক রবিন সিং দেও, জেলা সভাপতি বিনোদ তিওয়ারি ও জয়পুর মণ্ডল সভাপতি রামনাথ মাহাতো প্রমুখরা| পয়লা বৈশাখের প্রচারে পিছিয়ে ছিলেন না বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী শ্যামল সাঁতরাও। সোমবার বাঁকুড়ার জয়পুর বাসস্ট্যাণ্ড সংলগ্ন এলাকায় বাস, ট্রাক, ছোটগাড়ি, বাইক চালক ও পথচলতি সাধারণ মানুষের হাতে গোলাপ ও নকুলদানা বিলি করে প্রচার সারলেন তিনি। শুধু তাই নয়, প্রবল রোদে মানুষের তেষ্টা মেটাতে জলও তুলে দিলেন পথচারীদের হাতে। বছরের প্রথমদিনে মন্ত্রীর হাত থেকে শুভ নববর্ষের শুভেচ্ছা পেয়ে খুশি সাধারণ মানুষও। একদিকে যখন নকুলদানা ও গোলাপ বিলি করে ভোট প্রচারে ব্যস্ত তৃণমূল প্রার্থী শ্যামল সাঁতরা তখন তৃণমূলের সেই নকুলদানা বিলি তথা নকুলদানা ইস্যুতে অনুব্রত মণ্ডলের মন্তব্যকে কটাক্ষ করলেন বিজেপি প্রার্থী ডঃ সুভাষ সরকার।