বাঁকুড়ার মুকুটমনিপুর জলাধারে এবার পর্যটকদের জন্য শুরু হবে ওয়াটার স্পোর্টস এর সুবিধা

0
650

নিজস্ব প্রতিনিধি, বাঁকুড়া :

বাঁকুড়ার রানী মুকুটমনিপুর তারা একদিকে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অন্যদিকে বিশাল জলাধার মিলে এক অপরূপ সৌন্দর্যের সৃষ্টি হয়েছে মুকুটমণিপুরে।শীতের আমেজ পড়তে না পড়তেই এখানে দূরদূরান্ত থেকে পর্যটকরা ভিড় জমাই।এবারের মৌসুমে এই মুকুটমনিপুরের জলাধারেভ্রমণ পিপাসু মানুষদের কাছে পৌঁছে এক নতুন পরিষেবার এক নতুন মনরঞ্জন করার মাধ্যম দিতে চলেছে কংসাবতী ডেভেলপমেন্ট অথরিটি।জানা যায় এই মুকুটমণিপুরে এবারের সিজনে এবারের মৌসুমে ফ্রি বছরের ডিসেম্বর মাসে সম্ভবত সমস্ত কিছু ঠিকঠাক থাকলে ওয়াটার গেমস এর সুযোগ সুবিধা পাওয়ার গেমের যে পরিষেবা সে পরিষেবা উপলব্ধি করতে পারবে এখানে আসা পর্যটকরা। এছাড়াও এই জলাধার কে কেন্দ্র করে এই কংসাবতী ডেভেলপমেন্ট অথরিটি ভবিষ্যতে এক্স বোর্ড সহ নানা রকম পরিকল্পনা আনার চেষ্টা করছে যা হয়তো একটু দীর্ঘমেয়াদী।কিন্তু এবারের ফ্রী বছরেডিসেম্বর মাসেই সম্ভবত মানুষের কাছে পৌঁছে দেবে এই ওয়াটার ফোর্সের পরিষেবা।এবার শুধু আর দীঘার সমুদ্রে না এবার এই ওয়াটার স্পোর্টস এী পরিষেবা মিলবে মুকুটমণিপুর জলাধারে, এই পরিষেবা শুরু পর নতুন এক পরিষেবা মওলবে এই পর্যটন কেন্দ্রে। প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে কোলকাতার এক কোম্পানির সাথে চুক্তি হয়েছে এই ওয়াটার স্পোর্টস নিয়ে সম্ববত সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে এই শীতেই মিলবে এই পরিষেবা।

এতদিন পর্যন্ত এই মুকুটমণিপুর জলাধার নৌকাবিহার বা স্পিডবোটের ব্যবস্থা থাকলেও ওয়াটার স্পোর্টস বা হাউস বোটের পরিষেবা এখানে ছিল না কিন্তু এই বছরে সম্ভবত সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে পর্যটকরা ওয়াটার স্পোর্টস এর মতো পরিষেবা উপলব্ধি করতে পারবে। তবে হাউস বোট কবে হবে তা এখনও ঠিক নেই। তবে ওয়াটার স্পোর্টস যে এই ফ্রি বছরে পর্যটকদের কাছে আসছে তা একপ্রকার নিশ্চিতই বলা চলে।

এদিন কংসাবতী ডেভলপমেন্ট অথারিটীর সহ সভাপতি বা রানিবাঁধ বিধান সভার বিধায়ক জোৎস্না মান্ডি জানায়, আমরা মুকুটমনিপুরকে নানা রকম ভাবে সাজানোর চেষ্টা করছি। এছাড়াও এবার আমরা ওয়াটার স্পোর্টস এক্টিভিটি তৈরী করার চেষ্টা করছি, ফলে সাধারন পর্যটকরা সারা বছর ধরে আসবে এবং এছাড়াও আমরা কিছু আরো বোট আনার চেষ্টা করছি, যাতে মানুষ এখানে এসে বোটিং করার সুযোগ বেশি পায় এবং তার সাথে সাথে আমাদের একটা পরিকল্পনা আছে হাউস বোট টাইপের কিছু করা ফলে মানুষের সারা বছর ধরে এই পরিষেবা গুলো পাবে এবং পর্যটক দের আনাগোনা আরো বাড়বে। এদিন তিনি আরো বলেন যে, মোবাইল নেটওয়ার্ক ঠিক ঠিক থাকার ব্যাপারটি বা ব্যাঙ্ক এটিম এর সুযোগ পর্যটক রা যাতে মুকুটমনিপুরেই পাই তারও প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে, সম্ভবত খুব তাড়াতাড়িই সমাধান হয়ে যাবে এই সমস্যা গুলির।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here