ভগবান দর্শনের নয়টি পথের মধ্যে যে কোনো একটি অবলম্বন করুন

0
285

সংগীতা চৌধুরী, বহরমপুরঃ– ভগবানকে আমরা প্রত্যেকেই লাভ করতে চাই কিন্তু তাকে লাভ করবার জন্য যে পরিমাণ সময় ব্যয় করতে হয় তা ব্যয় করতে আমরা ইচ্ছুক নই। তাকে লাভ করবার জন্য যে কঠোর সাধনা করতে হয় তাও আমরা করতে পারি না। তাই আজকের প্রতিবেদনে বলবো ভগবানকে লাভ করার নয়টি পথের কথা। এর মধ্যে যেকোনো একটি পথ অবলম্বন করলেই ভগবদ্ধাম লাভ করা যায়।

ক।শ্রবণম: মহারাজ পরীক্ষিত কেবল শ্রবণের মাধ্যমে ভগবদ্বাম লাভ করেন। তিনি শ্রীল শুকদেবের নিকট থেকে কেবল মাত্র সাত দিন শ্রীকৃষ্ণ মহিমা শ্রবণ করেছিলেন।

খ।কীর্তনম: শ্রীল শুকদেব গোস্বামী ঐ একই গতি লাভ করেন। তার পিতা মহান ঋষি ব্যাসদেবের নিকট থেকে লব্ধ অপ্রাকৃত সংবাদ ভগবৎ গুন মহিমা অবিকৃত ভাবে কীর্তনের মাধ্যমে।

গ।স্মরনম: মহারাজ প্রহ্লাদ ভগবানের শুদ্ধ ভক্ত দেবর্ষি নারদ মুনির উপদেশ অনুসারে সর্বদা ভগবানকে স্মরণের মাধ্যমে পরম গতি প্রাপ্ত হন।

ঘ।পাদসেবনম (সেবা) : সৌভাগ্যের অধিষ্ঠাত্রী দেবী,লক্ষ্মীদেবী কেবল একস্থানে উপবেশন করে শ্রী নারায়ণকে পাদসেবা করে সাফল্য লাভ করেন।

ঙ)অর্চনম (পূজা): মহারাজ পৃথু কেবল ভগবানের পূজা করার মাধ্যমে সর্ব্বোচ্চ সিদ্ধি প্রাপ্ত হন।

চ।বন্দনম (স্তব- গান) : কেবল স্তবের দ্বারা ভগবানের বন্দনা করার মাধ্যমে অত্রুর পরম পদ প্রাপ্ত হন।

ছ।দাস্যম ( আঙ্গা পালন) : শ্রীরামচন্দ্রের সেবক মহান ভক্ত হনুমান কেবল ভগবানের আজ্ঞা পালনের মাধ্যমে পরম গতি লাভ করেন।

জ।সখ্যম ( ভগবানের সংগে সখ্যতা স্থাপন): মহাবীর অর্জুন ভগবানের সঙ্গে সখ্যতা করার মাধ্যমে পূর্ণ সিদ্ধি অর্জন করেন। অত্যন্ত প্রীত হয়ে ভগবান অর্জুন ও অর্জুনের ভবিষ্যৎ অনুগামী মানুষদের জন্য ভগবতগীতার অমৃতময় জ্ঞান উপদেশ করেন।

ঝ।আত্মনিবেদন: মহারাজ বলি তার যথা সর্বস্ব এমনকি নিজ দেহটিকেও ভগবানকে নিবেদনের মাধ্যমে পূর্ণ সাফল্য প্রাপ্ত হন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here