জগন্নাথকে কেন ৫৬ ভোগ দেওয়া হয়? জানেন কী ?

0
783

সঙ্গীতা চৌধুরীঃ- ভগবান শ্রীকৃষ্ণ কে ৫৬ ভোগ দেওয়া হয়। এখন রথ যাত্রার সময় জগন্নাথ কেও ৫৬ ভোগ দেওয়া হয়। পুরীতে ও জগন্নাথের ৫৬ ভোগ হয়।কেন তা জানতে হলে অবশ্যই প্রতিবেদনটি মন দিয়ে পড়ুন।

ভগবান শ্রীকৃষ্ণ ইন্দ্র পুজো বন্ধ করে গোবর্ধন পুজো শুরু করেন।তিনি ইন্দ্র পূজার বিরোধী ছিলেন না। তিনি ভয় থেকে ইন্দ্র পূজা করার বিরোধী ছিলেন। তাই তিনি ব্রজবাসি দের বলেন ভয় হতে কোনো পুজো করাই উচিত নয়। তাই গোবর্ধন পর্বতের প্রতি কৃতজ্ঞতা দেখিয়ে আমরা এবার গোবর্ধন পূজা করবো।

শ্রীকৃষ্ণের কথা অনুযায়ী সকল ব্রজবাসীরা যখন গোবর্ধন পূজা শুরু করেন তখন ইন্দ্র রেগে গিয়ে ঝড় বৃষ্টি , ব্রজ্রপাত করে। ভগবান শ্রীকৃষ্ণ তখন ব্রজবাসীদের রক্ষা করার জন্য গোবর্ধন পর্বত হাতে তুলে নেন ও কনিষ্ঠ আঙুল দিয়ে ধরে রাখেন। ভগবান শ্রীকৃষ্ণ ৭ দিন ৭ রাত্রি এইভাবে গোবর্ধন পর্বত কে নিজের আঙুলের উপর ধারণ করেছিলেন। এরপর ইন্দ্র শ্রীকৃষ্ণের আসল স্বরূপ বুঝতে পারেন।নিজের ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমা চান ভগবান শ্রীকৃষ্ণ এর কাছে পরম দয়ালু ভগবান শ্রীকৃষ্ণ তৎক্ষণাৎ ইন্দ্রকে ক্ষমা করে দেন ।কিন্তু ব্রজবাসিরা ইন্দ্র ইন্দ্র কে ক্ষমা করেন না। তারা ইন্দ্রের উদ্দেশ্যে বলেন-” কৃষ্ণ ক্ষমা করে দিলেও আমরা তোমাকে ক্ষমা করবো না। কারণ তুমি আমাদের কৃষ্ণের সেবা বন্ধ করে দিয়েছো। গত সাতদিন সাত রাত ধরে কৃষ্ণের সেবা বন্ধ আছে। আমরা একদিন এই কৃষ্ণকে আটবার ভোগ নিবেদন করি। সাত দিনে হয় (৭*৮)=৫৬ বার ভোগ নিবেদন। যা তোমার জন্য বন্ধ হয়ে গেছে। আমরা তোমাকে ক্ষমা করব না।”
এই কথা শুনে দেবরাজ ইন্দ্র বলেন- “আমি এখনই ভগবান শ্রীকৃষ্ণ কে ৫৬ ভোগ নিবেদন করছি। তোমরা আমাকে ক্ষমা করো।”ইন্দ্র তার কথামতো ভগবান শ্রীকৃষ্ণ কে ৫৬ বার ভোগ নিবেদন করলেন। এবং সেই থেকেই এই প্রথার প্রচলন। রথযাত্রা উপলক্ষে জগন্নাথ কেও ৫৬ বার ভোগ নিবেদন করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here