এসওজি গ্রূপ ও পুলিশের ফাঁদে কার্তুজ ও অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র সহ মহিলা পান্ডা গ্রেপ্তার

0
1030

সংবাদদাতা, মুর্শিদাবাদ:-

পুরো চক্ষু চড়ক গাছে উঠেছে জেলার দুঁধে পুলিশ কর্তাদের। কখনও নাইলনের ব্যাগে, তো কখনো গাড়ীর ডিকির আড়ালে এতকাল ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত পেরিয়ে ইমপ্রুভাইসড আগ্নেয়াস্ত্র থেকে কার্তুজের আদান প্রদান ঘটেছে মুর্শিদাবাদে। এবার সেই চেনা ছকের পরিবর্তন ঘটিয়ে সহস্র অধিক তাজা কার্তুজ পাচারের আগেই মুর্শিদাবাদ পুলিশের স্পেশাল অপারেশন গ্রূপ ও ফারাক্কা পুলিশের যৌথ অভিযানে বমাল গ্রেপ্তার হল অস্ত্র কারবারী দলের মহিলা পান্ডা ফুরকান বিবি(৩৬)। যদিও তার স্বামী হাবিবুর শেখ ঘটনার কিছু মুহূর্ত আগেই এলাকা ছেড়ে পালায়। তার বাড়ী সংলগ্ন ডেরায় অভিযানে নাননা বোরের মোট ২১৩ রাউণ্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার হয়। সাথে ওই মহিলা অস্ত্র কারবারীর পান্ডা কে দফায় দফায় জেরা করে অত্যাধুনিক ঈমপ্রুভাইসড পিস্তল সহ মোট ৯ টি বন্দুকও মেলে। এই ব্যাপারে এদিন জেলার পুলিশ সুপার শ্রী মুকেশ বলেন,”গত লোকসভা ভোটের আগে থেকেই আমাদের কাছে সৌর্স মারফৎ ইম্পুট আসতে শুরু করে ওই মহিলা অস্ত্র কারবারী সম্পর্কে। পুর গ্যাং কে হাতে নাতে বমাল ধরতে পরিকল্পনা করেই এই সাফল্য”। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র থেকে জানা যায়,সম্প্রতি মুর্শিদাবাদ-ঝাড়খণ্ড বর্ডার দিয়ে বড়সড় অস্ত্র মাফিয়ারা তাদের নেটওয়ার্ক বিস্তারের মাধ্যমে মুর্শিদাবাদে ব্যাপক হারে অস্ত্র ঢুকতে শুরু করেছে। সেইমত পুলিশ ও এস ও জি গ্রূপ লাগাতার খোঁজ চালাতে শুরু করে। এদিন ফরাক্কার ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের উপর ফরাক্কা থানার পুলিশ ও স্পেশ্যাল অপারেশন গ্রুপের যৌথ উদ্যোগে নেমে রাস্থা থেকে ধাওয়া করে রামরামপুর এলাকা থেকে এই মহিলাকে গ্রেফতার করা হয়।তাকে সাথে নিয়েই তার স্বামী হাবিবুর শেখের বাড়িতে হানা দেয় পুলিশ। বাড়ি থেকে ৯ টি পিস্তল ও ২১৩ রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার হয়। কিন্তু পুলিশ আসার আগেই বাড়ি ছেড়ে পালান হাবিবুর। পুলিশ সূত্রে খবর, ফুরকান বিবির কাছ থেকে মোট ১৫ টি গুলির প্যাকেট উদ্ধার হয়েছে। সেই প্যাকেটে ১৫০ রাউন্ড ৮ এমএম কার্তুজ, ৩২টি ৭.৬৫ এমএম কার্তুজ, ২৫ টি ৯ এমএম কার্তুজ ও বাকি ০.৩০৩ কার্তুজ মেলে। এছাড়াও ৫ টি ৯ ইমপ্রুভাইসড অত্যাধুনিক ৯ এম এম, পিস্তল, ৪টি দেশি পিস্তল দুটি ম্যাগাজিন ও একটি ফোন পাওয়া গিয়েছে। পুলিশ সূত্রে খবর, হাবিবুর ও ফুরকান দু’জনেই এই অস্ত্র পাচারের কাজ করেন। ধৃত ওই মহিলা অস্ত্র কারবারীর পান্ডা কে কড়া পুলিশি নজরদারীর মধ্যে ৫ দিনের পুলিশি রিমান্ড চেয়ে জঙ্গিপুর মহকুমা আদালতে তোলা হয়। বিকেলের শেষ পাওয়া শেষ খবরে জানা যায় বিচারক ধৃতের ৫ অক্টবর পর্যন্ত পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here