বিশ্ব ফিজিওথেরাপি দিবস উদযাপিত

0
83

নিজস্ব সংবাদদাতা, দুর্গাপুরঃ- প্রতিবছর ৮ সেপ্টেম্বর বিশ্ব ফিজিওথেরাপি দিবস পালন করা হয়।১৯১৩ সালে  নিউজিল্যান্ড এর একদল স্বাস্থ্যকর্মী তাদের দেশে চিকিৎসাসেবায় প্রথম ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা শুরু করে। ১৯১৪ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে  ফিজিওথেরাপি  চিকিৎসা শুরু হয়। ১৯২১ সালে ফিজিক্যাল থেরাপিস্ট  এসোসিয়েশন গঠন করে  পঙ্গুদের পুনর্বাসনের জন্য চিকিৎসা বিজ্ঞানের আধুনিক নাম  ফিজিওথেরাপি বলে ঘোষণা করেন  যুক্তরাষ্ট্রের  চিকিৎসক মেরি এমসি মিলান। তাঁকে বলা হয় মাদার অফ ফিজিক্যাল থেরাপি ।

১৯২৪ সালে জিওরজিয়া ওয়ার্ম স্প্রিং ফাউন্ডেশন পোলিও রোগ নিয়ে কাজ শুরু করে। ১৯৯০ সালে ফ্রেডি কেলটেনবর্ন নামে একজন  ফিজিওথেরাপিস্ট  ম্যানুয়াল থেরাপির বিভিন্ন ধারা ব্যবহার করে সারা পৃথিবীতে আলোড়ন সৃষ্টি করেন। ১৯৯৬ সালে ওয়ার্ল্ড কনফেডারেশন অফ ফিজিক্যাল থেরাপি  ৮ সেপ্টেম্বরকে  বিশ্ব ফিজিওথেরাপি দিবস হিসেবে ঘোষণা করেন। সেই থেকে প্রতি বছর বিশ্বের প্রায় ১২১ টি দেশে এই দিনটি পালন করা হয়। এই বছর বিশ্ব ফিজিওথেরাপি দিবসের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় হল অস্টিওআর্থাইটিস  চিকিৎসায় ফিজিওথেরাপি অত্যন্ত কার্যকরী চিকিৎসা পদ্ধতি। সারা বিশ্বে ৫২০মিলিয়ন মানুষ এই রোগের শিকার। বিশ্বের ৬০শতাংশ মানুষ হাঁটু সংক্রান্ত সমস্যায় ভুগছেন। বিশ্বে প্রতি দশ বছরে অস্টিওআর্থাইটিস রোগীর সংখ্যা ৪৮ শতাংশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। স্থূল মহিলারা এই রোগের বেশী শিকার। 

হিমোফিলিয়া সোসাইটি দুর্গাপুর এর  সহযোগিতায় সিটি সেন্টারে হিমোফিলিয়া সোসাইটি আয়োজিত  ও দুর্গাপুর ফিজিওথেরাপি সোসাইটির সহযোগিতায়  যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে ১১ সেপ্টেম্বর বিশ্ব ফিজিওথেরাপি দিবস পালন করলো। হিমোফিলিয়া রোগাক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার গুরুত্ব অপরিসীম। এদিন হিমোফিলিয়া আক্রান্ত রোগীদের সঙ্গে সঙ্গে অস্টিও আর্থাইটিস রোগে আক্রান্ত রোগীরাও চিকিৎসা সহায়তা নেন। নিউরোলজিস্ট ডঃ প্রবীণ যাদব, ডি এস পি হাসপাতালের  ফিসিওথেরাপিস্ট ইনচার্জ,  ডঃ তপন বাদ্য কর, পল্লব চক্রবর্তী, হিমোফিলিয়া সোসাইটিরঅজয় রায়, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। পল্লব চক্রবর্তী বলেন বর্তমান বিশ্বে অস্টিওআর্থাইটিস রোগের শিকার হচ্ছে সবচেয়ে বেশি মানুষ। এই রোগ থেকে সুস্থ থাকতে ফিজিওথেরাপির সহায়তা নেবার কথা বলেন শ্রী পল্লব চক্রবর্তী। শ্রী তপন বাদ্যকর বলেন  হিমোফিলিয়া রোগীদের প্রথমে নিজের প্রতি নিজেকে যত্নবান হতে হবে যাতে কোনধরনের ইনজুরি না হয়। ইনজুরি হলে প্রথমে প্রয়োজনমত আইস সেক ও  এরপর ফিজিওথেরাপির সাহায্য নিতে হবে। সবশেষে ওষুধের ব্যবহার । ডঃ যাদব বলেন হিমোফিলিয়া রোগীদের ব্রেনে কোন হেমারেজ হলে তিনি তার প্রতিবিধান করার চেষ্টা করেন। তিনি বলেন ব্লিডিং কমাতে নিয়মিত ফিজিওথেরাপি ব্যায়াম করতে হবে।

এই অনুষ্ঠানে হিমোফিলিয়া ও অস্টিওআর্থাইটিস রোগের আক্রান্ত রোগীদের ফিজিওথেরাপির সাহায্যে চিকিৎসা করেন দুর্গাপুর ফিজিওথেরাপি সোসাইটির সদস্যরা। প্রায় একশো জনের মতো রোগী এদিন চিকিৎসা সহায়তা নেন। এছাড়াও এদিন বিভিন্ন বয়সী মানুষদের সম্পূর্ন বিনামূল্যে বোন ডেন্সিটোমেট্রি টেস্ট ও করা হয়। সারা বিশ্বের ১২৫ টি দেশের ৬,৮৫,০০০ ফিজিওথেরাপিস্ট এই দিনটি পালন করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here